হাওড়া: লোকসভা ভোটে স্বচ্ছতা আনতে এবার সব বুথেই ইভিএমের সঙ্গে থাকবে ভিভিপ্যাট। এই নিয়ে হাওড়ায় ভোটারদের সচেতন করতে সোমবার থেকেই শুরু হল বিশেষ শিবির। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশেই এই প্রচার অভিযান শুরু করা হল বলে প্রশাসন সূত্রের খবর। সোমবার সকালে হাওড়ায় নিউ কালেক্টরেট ভবনের কনফারেন্স রুমে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এর সূচনা করেন হাওড়ার জেলাশাসক চৈতালি চক্রবর্তী। সেখানে জেলা প্রশাসনের আধিকারিকরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা।

ভোটে স্বচ্ছতার বিষয়ে জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা আনতেই এই প্রচার অভিযান শুরু হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ অনুযায়ী এবার ১০০ শতাংশ ভোট হবে ইভিএম এবং ভিভিপ্যাট-এর মাধ্যমে। ইভিএম অর্থাৎ ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের সাহায্যে বোতাম টিপে ভোটদান করতে হবে। আর ভিভিপ্যাট অর্থাৎ ভোটার ভেরিফায়েবল পেপার অডিট ট্রেলের সাহায্যে ভোট দাতার ভোট নির্দিষ্ট প্রার্থীর ঘরে গেল কি না তা যাচাই হবে। এই ইভিএম মেশিনের সঙ্গে ভিভিপ্যাট মেশিনকে জুড়ে দেওয়া হবে। এই মেশিন থেকে একটি ছোট কাগজের স্লিপ একটি বাক্সে জমা হবে। এভাবেই ভোটদান প্রক্রিয়া হবে।

সোমবার হাওড়ায় এক সাংবাদিক সম্মেলনে জেলাশাসক চৈতালি চক্রবর্তী বলেন, ভোট দাতার রায় ঠিকমতো যন্ত্রে পড়েছে কিনা তা তিনি ভিভিপ্যাটে সাত সেকেন্ড দেখার সুযোগ পাবেন। আগামী নির্বাচনে হাওড়া জেলায় প্রায় ৪ হাজার ৩০৯টি ভোটকেন্দ্রের প্রতিটিতেই থাকবে এই ইভিএম এবং ভিভিপ্যাটে। প্রতিটি পোলিং স্টেশন লোকেশন ধরে আগামী ২৫ তারিখ থেকে বিশেষ শিবির করে মানুষকে এর কার্যকারিতা বোঝানো হবে। লোকসভা নির্বাচনে সব বুথেই ইভিএমের সঙ্গে থাকছে ভিভিপ্যাট।

তিনি আরও বলেন, এতদিন পর্যন্ত পোলিংয়ের ক্ষেত্রে সিইউ অর্থাৎ কন্ট্রোল ইউনিট, বিইউ অর্থাৎ ব্যালট ইউনিট থাকত। এবার এর সঙ্গে ভিভিপ্যাট চালু হল। প্রতিটি পোলিং স্টেশনে এই সিস্টেম চালু থাকবে। এই নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে সচেতনতা গড়ে তুলতে ম্যাসিভ অ্যাওয়ারনেস প্রোগ্রাম নেওয়া হচ্ছে। এখন ডিএম, এসডিও এবং বিডিও অফিসে বিশেষ ক্যাম্প চালু করে এর প্রচার হবে। এরপর আগামী ২৫ জানুয়ারি থেকে হাওড়া জেলায় পার্মানেন্ট ডেমনস্ট্রেশন সেশন শুরু হবে প্রতিটি পোলিং স্টেশন লোকেশন ধরে।

--
----
--