হাওড়াকে তামাকমুক্ত জেলা ঘোষণা

হাওড়া: সাফল্যের নয়া পালক জুড়ল হাওড়া জেলার মুকুটে৷ আজ বিশ্ব ধূমপান বিরোধী দিবসের দিনই হাওড়াকে তামাকমুক্ত জেলা ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷

হাওড়াকে তামাকমুক্ত জেলা হিসেবে ঘোষণা করতে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছিল গত কয়েক মাস আগেই৷ শেষপর্যন্ত এল সেই মাহেন্দ্রক্ষণ৷ সরকারিভাবে বুধবার ৩১ মে হাওড়া জেলাকে তামাকমুক্ত জেলা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হল৷ হাওড়ার জেলাশাসক চৈতালি চক্রবর্তী নিউ কালেক্টরেট ভবনের পথের দাবি হলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এই ঘোষণা করেন৷ জেলাশাসক ছাড়াও এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডা: ভবানী দাস, এডিএম পঞ্চায়েত শংকর প্রসাদ পাল, ওসি হেলথ দিব্যেন্দু লাল ভট্টাচার্য, ডিএলডব্লুউ হীরক বন্দ্যোপাধ্যায়, ডেপুটি সিএমওএইচ (২) তথা হাওড়া জেলার নোডাল অফিসার ডা: কুণাল কান্তি দে, জেলা স্বাস্থ্য উপদেষ্টা নীরজ কান্তি প্রামাণিক, জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি আধিকারিক তাপস ভাওয়াল সহ মান্ট ও অন্যান্য আধিকারিকরা। আইন বলছে, কোনও ব্যক্তি যদি পাবলিক প্লেসে যদি ধূমপান বা তামাক জাতীয় জিনিস ব্যবহার করলে তাঁকে ২০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে। অনাদায়ে এক বছরের জেল হতে পারে। এই আইনের ৬এ তে বলা আছে ১৮ বছরের নিচে কোনও ব্যক্তি তামাক জাতীয় দ্রব্য বিক্রি করতে পারবে না। ৬বি তে বলা আছে কোনও স্কুল বা তার চারপাশে ১০০মিটারের মধ্যে কোনও ব্যক্তি তামাক জাতীয় দ্রব্য বিক্রি করতে পারবেন না৷ সেক্ষেত্রেও ২০০ টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে এক বছর জেল হতে পারে৷ গত মার্চের পরিসংখ্যান অনুযায়ী হাওড়া শহরে এক বছরে এক হাজার ২৭ জনকে জরিমানা করা হয়েছে। ২০১৬ সালের মার্চ মাস থেকে এই জরিমানা করার অভিযান চালানো হয়েছিল। এছাড়াও সরকারের স্বাস্থ্য দফতর থেকে একটি এনফোর্সমেন্ট মুভ করা হয়েছিল আমতা-১ ও ২ ব্লক থেকে। সেখানে জরিমানা না নেওয়া হলেও সচেতন করা হয়েছিল৷ চলছিল হাওড়াকে পুরোপুরিভাবে তামাকমুক্ত করার উদ্যোগ। বুধবার  দুপুরে হাওড়ার পথের দাবি হলে এনিয়ে এক বৈঠক ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানেই তামাকমুক্ত জেলা ঘোষণা করা হয় হাওড়াকে।

এবিষয়ে ডেপুটি সিএমওএইচ(২) তথা হাওড়া জেলার নোডাল অফিসার ডা: কুণাল কান্তি দে বলেন, হাওড়া জেলায় এক হাজার পাবলিক অফিসে আমরা সচেতনতার কাজ করেছি। গ্রাম পঞ্চায়েত অফিস, সাব সেন্টার, হাসপাতাল, অঙ্গনওয়াড়ী সব জায়গায় এনিয়ে প্রচার হয়েছে। ব্লক লেবেলে মিটিং করেছি। প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েত থেকে শংসাপত্র পেয়েছি। আইন ভাঙার কারণে প্রায় ৮ হাজার জনকে জরিমানা বাবদ ১৫ লক্ষ ৩৭ হাজার টাকা আমরা আদায় করেছি। হাওড়া জেলার ১৫৭টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে ১৩৭টি গ্রাম পঞ্চায়েতকে স্মোক-ফ্রি ঘোষণা করা হয়েছে। জেলা স্বাস্থ্য উপদেষ্টা নীরজ কান্তি প্রামাণিক বলেন, দেশের মধ্যে ১৫৯তম জেলা হিসেবে হাওড়া জেলা আজ তামাকমুক্ত জেলার মর্যাদা পেয়েছে। রাজ্যের মধ্যে দার্জিলিংয়ের পর হাওড়া দ্বিতীয় জেলা হিসেবে এই মর্যাদা পেল। এতে দায়িত্ব আরও বাড়ল। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডা: ভবানী দাস বলেন, পাবলিক প্লেসে তামাক বিরোধী প্রচার এবং অভিযান আগামী দিনেও চলতে থাকবে। কাজ থেমে থাকবে না।

Advertisement
----
-----