বিজেপিতে যোগ দিলেন মমতার প্রাক্তন মন্ত্রী

সৌমিক কর্মকার: বিজেপিতে যোগদান করলেন হুমায়ুন কবীর৷ মুর্শিদাবাদের এই কংগ্রেস নেতা সোমবার দুপুরে গেরুয়া শিবিরে৷ এ রাজ্যে বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় তাঁকে পদ্ম-শিবিরে স্বাগত জানান৷

এদিন নয়াদিল্লিতে বিজেপির সদর দফতরে এই যোগদান পর্ব হয়৷ সেখানে কৈলাস বিজয়বর্গীয় আরও কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা উপস্থিত ছিলেন৷

আরও পড়ুন: লোকসভায় অধীরের বিরুদ্ধেও লড়তে প্রস্তুত হুমায়ুন

- Advertisement -

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভার প্রাক্তন এই সদস্য যে বিজেপিতে যাচ্ছেন, তা স্পষ্ট হয়েছিল মাস খানেক আগে৷ কিন্তু কবে তিনি যোগদান করবেন, তা নিয়ে ধোঁয়াশা ছিল৷ সেই ধোঁয়াশা কেটে গেল সোমবার৷

যোগদানের পর নয়াদিল্লি থেকে ফোনে kolkata24x7-কে হুমায়ুন কবীর জানালেন, আগামিকালই তিনি কলকাতায় ফিরবেন৷ তার পর যাবেন নিজের জেলা মুর্শিদাবাদে৷ শুরু করবেন বিজেপির সংগঠন বাড়ানোর কাজ৷ এরই মধ্যে তিনি রেজিনগরে জনসভাও করবেন৷ সূত্রের খবর, ওই সভায় বিজেপিতে যোগদান করতে পারেন মুর্শিদাবাদের অনেক রাজনৈতিক কর্মী৷ এমনকী, গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে পারেন বেশ কয়েকজন নেতাও৷

আরও পড়ুন: অধীর চৌধুরী আর ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন না, দাবি হুমায়ুনের

আরও পড়ুন: সিপিএমের আমলেও পুলিশ এমন সন্ত্রাস করেনি : হুমায়ুন কবীর

সেই তালিকায় কারা রয়েছেন, তা ভেঙে বলতে চাননি প্রাক্তন এই কংগ্রস নেতা৷ তবে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, এ রাজ্যে বিজেপির কোনও সংখ্যালঘু মুখ ছিল না৷ সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নেতা হয়তো বিজেপি আছে৷ কিন্তু হুমায়ুন কবীরের মতো জনভিত্তি কারও নেই৷ সেই জায়গা থেকে মুর্শিদাবাদের মতো একটা জেলায় হুমায়ুনকে দলে টেনে লাভই হল বিজেপির৷ কারণ, ভোটের নিরিখে নবাবের জেলায় সংখ্যালঘুরাই সংখ্যাগুরু৷

আরও পড়ুন: ‘কংগ্রেসই ঠিক করুক, ওরা নির্বাচনে লড়বে নাকি ঠুমকা নাচবে’

আরও পড়ুন: সংসদের বাদল অধিবেশন শুরু হচ্ছে ১৮ জুলাই

যদিও সেই লাভ বিজেপি কতটা ঘরে তুলতে পারবে, তা নিয়ে প্রশ্নচিহ্ন রয়েই যাচ্ছে৷ কারণ, রাজ্য রাজনীতিতে হুমায়ুন কবীর বরাবর ঠোঁটকাটা হিসেবে পরিচিত৷ প্রায়ই তিনি বিতর্কিত কথা বলে সংবাদ শিরোনাম চলে আসেন৷ ফলে তাঁর এই অভ্যাস বিজেপিকে সুবিধা করে দেবে নাকি, এর জেরে বিপাকে পড়তে হবে, তার জন্য অপেক্ষায় রাজ্য রাজৈনতিক মহল৷

Advertisement ---
---
-----