বউ ‘বদলাবদলি’র অভিযোগে ধৃত দুই স্বর্ণ ব্যবসায়ী

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: স্ত্রী বদলাবদলির প্রস্তাব৷ রিলের অজনবির বাস্তব প্রতিফলন যেন রিয়েল লাইফে বালিগঞ্জের সেন পরিবারে৷ পণের দাবিতে বাড়ির ছোট বউমার প্রতি অত্যাচার চলছিল বিগত বেশ কয়েক বছর ধরেই৷ দাবি না মেটায় স্ত্রী বদলাবদলির জন্য চাপ দেওয়ার অভিযোগ ওঠে নির্যাতিতার স্বামী ও ভাসুরের বিরুদ্ধে৷ শুক্রবার কড়েয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতা সেন পরিবারের ছোট বউ৷ অভিযুক্ত স্বামী ও ভাসুরকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ তাদের ৭ই জানুয়ারি পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেয় আলিপুর আদালত৷

 

- Advertisement -

জানা গিয়েছে, ১৪ বছর আগে বালিগঞ্জ পার্কের আরিহান্ত গার্ডেন আবাসনের বাসিন্দা সুরঞ্জন সেনের সঙ্গে বিয়ে হয় ওই যুবতীর। প্রথম দিকে স্বচ্ছল পরিবারে ভালোই ছিলেন পরিবারের ছোট বউ ওই যুবতী৷ অভিযোগ, বিয়ের কয়েক বছর বাদেই পণের দাবি জানায় শ্বশুর বাড়ির লোকেরা৷ না মেলায় শুরু হয় মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার৷

এখানেই শেষ নয়৷ ওই যুবতীর অভিযোগ তাকে প্রায়ই ভাসুর নিলাঞ্জন সেনের সঙ্গে যৌণ মিলনের জন্য চাপ সৃষ্টি করতেন স্বামী সুরঞ্জন সেন৷ পরিবারের রীতি ‘বধূবদল’, এই কথাও নাকি শ্বশুড়বাড়ির তরফে বলা হয় তাকে৷ পরে ভাসুর তাকে ধর্ষণ করে বলেও অভিযোগ৷ এইসবের পর মাস ছয়েক আগে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয় তাকে৷

বহু চেষ্টা পরও স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি বলে জানান নির্যাতিতা৷ শুক্রবার সকালে কড়েয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতা৷ মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন, ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্ত সেন পরিবারের দুই ছেলে নিলাঞ্জন সেন ও সুরঞ্জন সেনকে৷ এদিন আলিপুর আদালতে পেশ করা হয় ধৃতদের৷ তবে সেন পরিবারের তরফে ছোট বউমার চরিত্র নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে৷ বহু পুরুষের সঙ্গে যুবতীর সম্পর্ক ছিল বলে দাবি তাদের৷