নাবালিকা স্ত্রীকে মারধরের ঘটনায় গ্রেফতার স্বামী

স্টাফ রিপোর্টার, বারুইপুর: বাবা মাকে খুন করার ভয় দেখিয়ে দশম শ্রেণীর এক নাবালিকাকে জোর করে তুলে নিয়ে বিয়ে করেছিল এক যুবক৷ এরপরই শুরু হয় অত্যাচার৷ বাধ্য হয়ে শ্বশুড়বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় ওই নাবালিকা৷ কিন্তু তাও স্বামীর অত্যাচারের হাত থেকে বাঁচতে পারেনি সে৷ ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার ১১ নম্বর কুমড়োখালি গ্রামে। অভিযুক্ত স্বামীর অমিয় নস্কর৷

জানা গিয়েছে, মাস দুয়েক আগে ওই নাবালিকাকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করেছিল প্রতিবেশি যুবক অমিয়। বিয়ের পর স্ত্রীর উপর প্রায় দিন মানসিক ও শারীরিক অত্যাচার করত অভিযুক্ত স্বামী অমিয় নস্কর। শুধু না অত্যাচার করত তার মা ও বোনরা৷ শ্বশুর বাড়ির অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে সেখান থেকে পালিয়ে বাপের বাড়ি চলে আসে ওই বছর ষোলর গৃহবধূ।

বেশ কিছুদিন বাড়ির বাইরে বের হত না ওই নাবালিকা। শুক্রবার বিকেলে বাড়ি থেকে বাইরে বের হয় সে৷ তখনই আচমকা তার উপর চড়াও হয় অভিযুক্ত অমিয় নস্কর। ফের বেধরক মারধরের পাশাপাশি শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে গিয়ে তাকে হেনস্থা করে অমিয়৷ ঘটনায় গুরুতর জখম অবস্থায় ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে তার পরিবার৷

- Advertisement -

তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে৷ বর্তমানে সেখানেই ওই গৃহবধূ চিকিৎসাধীন৷ এই ঘটনায় ওই গৃহবধূর পরিবার অমিয় বিরুদ্ধে বাসন্তী থানায় অভিযোগ দায়ের করে৷ অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত অমিয় নস্করকে গ্রেফতার করে বাসন্তী থানার পুলিশ৷

Advertisement
---