স্ত্রীর মুখে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারল স্বামী

স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: সন্দেহের বশে স্ত্রীর মুখে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারল স্বামী৷ পাশাপাশি আক্রান্ত হন শালিও৷ ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের নলহাটিতে৷ আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয় রামপুরহাট হাসপাতালে৷ ঘটনার পর থেকেই পলাতক স্বামী৷ পুরো ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে নলহাটি থানার পুলিশ৷

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বীরভূমের নলহাটি থানার করিমপুর এলাকার বাসিন্দা তনুজা খাতুন বছর দুয়েক আগে ১০ নম্বর ওয়ার্ডে রনি শেখকে বিয়ে করেন। কিন্তু বিয়ের কয়েক মাস পর থেকে রনির সন্দেহ হতে থাকে তনুজার বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে। সন্দেহের কারণে রনি তনুজার দাম্পত্য জীবনে কলহ শুরু হয়৷ অশান্তির জেরে রনি তনুজাকে মারধরও করত৷

তাই দিন দুয়েক আগে তনুজা বাপের বাড়ি চলে যায়৷ এরপর বুধবার সন্ধ্যায় রনি তনুজাকে ফোন করে৷ ফোনে তাঁকে জানান তাঁর আধার কার্ড ও ভোটার কার্ড প্রয়োজন। সেই কথা বিশ্বাস করে তনুজা৷ রনির কথা মত তনুজা খাতুন তাঁর বোন কুলসুমা খাতুনকে নিয়ে সাইকেলে করে নলহাটি কলেজ সংলগ্ন একটি নার্সিংহোমের কাছে যায়। সেখানেই অ্যাসিডের বোতল নিয়ে অপেক্ষা করছিল রনি। তনুজা ও তাঁর বোন কুলসুমা রনির কাছে যেতেই বিষ খেয়ে আত্মহত্যার অভিনয় শুরু করে সে। তনুজা তাকে বাধা দিতে যায়৷ সেই সময় তনুজার হাতে দু ফোটা অ্যাসিড পড়ে৷ তখনই তিনি বুঝতে পারে কুমতলব নিয়ে এসেছে রনি৷

- Advertisement -

তাই সঙ্গে সঙ্গে তনুজা ও তাঁর বোন সাইকেলে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন। সেই সময় রনি মোটর বাইক নিয়ে তাঁদের পিছনে ধাওয়া করে৷ তাঁদেরকে লক্ষ্য করে অ্যাসিড ছুড়ে দেয় রনি৷ অ্যাসিডে তনুজার মুখসহ তাঁর বোনের শরীরের বিভিন্ন অংশ পুড়ে যায়। রাস্তায় পড়ে শারিরীক যন্ত্রণায় তাঁরা ছটফট করতে থাকে৷ স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁদেরকে উদ্ধার করে রামপুরহাট হাসপাতালে ভরতি করে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত স্বামী রনি পলাতক৷ পরিবারের পক্ষ থেকে নলহাটি থানা লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে নলহাটি থানার পুলিশ।

Advertisement ---
-----