‘আসছি’ বলে দুর্ঘটনায় চিরতরে হারিয়ে গেল হবু বর

স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: দু’পক্ষই রাজি ছিলেন বিয়েতে৷ পাকা দেখার পর বিয়ের পাকা কথা সারতে পাত্রর বাড়িতে এসেছিলেন পাত্রীপক্ষ৷ দুপুরে একসঙ্গে খাওয়াদাওয়াও সারলেন দুই বাড়ি৷ দুপুরে খাওয়ার পর হবু বৌ, শ্বশুর-শাশুড়ির জন্য বাজার থেকে পান আনতে মোটর বাইক নিয়ে বেরিয়েছিল ঈদুল সবজি (২০)৷ রোদ্দুরে পাত্র বাবাজীবনকে যেতে মানা করলেও শোনেনি সে৷ বলেছিল- ‘বেশিক্ষণ লাগবে না৷ বাইকে করে যাব, আর আসব৷’

কে জানত সেই বাইকটাই ‘কাল’ হয়ে দাঁড়াবে৷ পথ দুর্ঘটনায় চিরতরে মর-পৃথিবী থেকে হারিয়ে যাবে ঈদুল৷ মঙ্গলবার এমনই মর্মভেদী ঘটনার সাক্ষী থাকল মালদহর পুখুরিয়া থানার আড়াইডাঙা এলাকা। ঘটনার জেরে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে৷ শোকে মুহ্যমান পাত্রীপক্ষও৷ পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আড়াইডাঙা বাজারে পান আনতে যাওয়ার সময় বাইক আরোহী ঈদুলকে উলটো দিক থেকে দ্রুত গতিতে আসা একটি লরি ধাক্কা মারলে গুরুতর আহত হয় সে। রক্তাক্ত অবস্থায় স্থানীয়রা তাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয় গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান।

- Advertisement -

খবর পেয়ে ছুটে আসেন পরিজনেরা৷ শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়৷ কিন্তু শেষ রক্ষে হয়নি৷ গভীর রাতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে বছর কুড়ির তরুণ৷ কান্নার রোল ওঠে হাসপাতাল চত্বরে৷ জানা গিয়েছে ঈদুল পেশায় শ্রমিকের কাজ করতেন৷ মৃতর দাদা বাচ্চু সবজি জানিয়েছেন, মঙ্গলবার কদমতলী থেকে কন্যাপক্ষ দেখতে আসে ঈদুলকে। দু’পক্ষের পাকা কথা হয়ে যায়৷ খাওয়া-দাওয়ার পর তাঁদের জন্য স্থানীয় বাজারে পান আনতে গিয়েছিল ঈদুল৷ তারপরই দুর্ঘটনা৷

পুলিশ মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মালদহ মেডিক্যালের মর্গে পাঠিয়েছে৷ কীভাবে দুর্ঘটনাটি ঘটল তা খতিয়ে দেখছে পুখুরিয়া থানার পুলিশ। একই সঙ্গে খোঁজ চলছে ঘাতক লরি ও তার চালকের৷ দুর্ঘটনায় হবু বরের মৃত্যুতে এলাকায় নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

Advertisement ---
---
-----