মুম্বই: ‘ভট্ট’ নামের শেষে এই উপাধি থাকাটাই বলিউডে মাটি পেতে যথেষ্ট। কিন্তু এই ‘ভট্ট’ উপাধির পিছনে রয়েছে এক ইতিহাস। নিজের নামের শেষে সারনামটি মহেশের জোটেনি বাবার থেকে। এক অন্ধকারময় অতীত রয়েছে তাঁর।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে এসে বিটার অতীত নিয়ে মুখ খুললেন মহেশ ভট্ট। জানালেন, তিনি এক মুসলিম মায়ের অবৈধ সন্তান। তাঁর মা-এর মুখে শুনেছিলেন বাবা তাঁর নাম মহেশ রাখতে বলেছিল। ছেলেবেলায় দিনের পর দিন তিনি বাবার জন্য অপেক্ষা করেছেন। ভেবেছেন বাবা এসে একদিন তাঁকে মহেশ বলে ডাকবে। কিন্তু সেদিন তাঁর জীবনে কোনওদিন আসেনি। তাই বাবা কী জিনিস! বাবার ভূমিকা জীবনে কেমন তা কোনওদিন বোঝেননি তিনি।

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

আরও পড়ুন: প্রিয়াঙ্কা-নিকের বিয়ের ডেট, মুখ খুললেন কঙ্গনা

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

তবে তিবি বলেন, ” বাবার নাম আমি মায়ের মুখে শুনেছি। ওঁনার নাম ছিল নানাভাই ভট্ট। কিন্তু মহেশের জন্মের পর তাঁর ও তাঁর মায়ের কোনও দায়িত্বই নাকি নেননি নানাভাই। আমি জানি না বাবা কী জিনিস। বাবার কোনও স্মৃতিই নেই আমার।”

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

আরও পড়ুন: ‘ট্রাজেডি কুইনে’র জন্মদিনে গুগল ডুডলের শ্রদ্ধার্ঘ্য

একই সঙ্গে এদিন পরিচালক তথা প্রযোজক বলেন, ” বাবার জন্যই আমি কোনওদিন মায়ের আশা অনুযায়ী ভাল ছেলে হতে পারিনি।”

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

এমনকি তাঁর কথায়, মায়ের পছন্দ মতো কোনও কাজই নাকি জীবনে করতে পারেননি তিনি। আর এজন্য অন্ধকার অতীতকে পরোক্ষভাবে দায়ী করেছেন মহেশ ভট্ট।

----
--