যুদ্ধক্ষেত্রে শত্রুর তথ্য পেতে সুপারপাওয়ার ড্রোন বানিয়ে ফেলল খড়গপুর IIT

কলকাতাঃ   কোন দেশের দিকে তাকিয়ে থাকা নয়, একেবারে দেশীয় প্রযুক্তিতে সুপারপাওয়ার ড্রোন বানিয়ে ফেলল ভারত।  আর তা বানিয়ে রীতিমত তাক লাগিয়ে দিল খড়গপুর আইআইটি।  মহাভারতের দ্বিতীয় পাণ্ডবের নামে এই ড্রোনের নাম রাখা হয়েছে ভিম।  দেশের যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি কিংবা দেশের যে কোনও প্রয়োজনে এই সুপারপাওয়ার ড্রোনকে কাজে লাগানো সম্ভব বলে মত বিজ্ঞানীদের।

মাত্র এক মিটার লম্বা এই আনম্যানড এরিয়াল ডিভাইসের বৈশিষ্ঠ্য যে কোনও ড্রোনের থেকে আলাদা। এই ড্রোন যে জায়গার উপর দিয়ে উড়বে তার এক কিলোমিটার পর্যন্ত এলাকা ওয়াইফাই জোনে পরিণত হবে।  ফলে আপত্‍কালীন পরিস্থিতিতে নেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেলে এর সাহায্যে সহজেই অন্যত্র যোগাযোগ করা যাবে।  সাত ঘণ্টার ব্যাটারি ব্যাকআপ রয়েছে এই সুপারপাওয়ার ড্রোনে।  প্রয়োজনে প্যারাস্যুটের সাহায্যে দুর্গত এলাকায় ত্রাণ সরবরাহের কাজেও ব্যবহার করা যাবে ভিমকে।  আইআইটি খড়গপুরের এই গবেষক দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন সুদীপ মিশ্র।  অন্য সদস্যরা হলেন আনন্দরূপ মুখোপাধ্যায়, অরিজিত্‍ রায় এবং এনএস রঘুবংশী।

- Advertisement -

তাঁরা জানিয়েছেন যে এই সুপারপাওয়ার ড্রোন যথেষ্ট স্মার্ট ডিভাইস।  চলার পথে কোনও রকম বাধা থাকলে এই নিজে থেকেই তা চিহ্নিত করে পাশ কাটিয়ে যেতে পারে। শুধু তাই নয় মাটিতে নামার সময় সেখানে কোনও মানুষজন আছে কিনা, তা বুঝে নিয়ে প্রয়োজনে ল্যান্ড করার জায়গা পরিবর্তন করতে পারে ভিম।  ভারতে এত উন্নত প্রযুক্তির আধুনিত ড্রোন এই প্রথম বলে দাবি করেছেন তাঁরা।  ফলে যুদ্ধক্ষেত্রে তো বটেই, দেশের দুর্যোগপুণ্য এলাকাতেও এই ড্রোন ব্যবহার করা খুব সহজ হবে।  আর দাম? অন্য যে কোনও বিদেশি সুপার পাওয়ার ড্রোনের থেকেও কম।  ফলে, এই আবিষ্কার যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে।

Advertisement
---