স্মার্ট কলেজ ক্যাম্পাস হতে কোমর বাঁধল খড়গপুর আইআইটি

খড়গপুর: দেশের প্রথম স্মার্ট কলেজ ক্যাম্পাস হওয়ার জন্য কোমর বাঁধল খড়গপুর আইআইটি৷ এই লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই পদক্ষেপ নেওয়া হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছে দেশের তথা রাজ্যের খ্যাতনামা এই প্রতিষ্ঠানটি৷ স্মার্ট কলেজ ক্যাম্পাসে একটি মাত্র স্মার্টফোন অ্যাপ ব্যাবহার করে হস্টেলে থাকা যন্ত্রাদি চালনা করতে পারবে পড়ুয়ারা৷

প্রতিষ্ঠানের তরফে জানানো হয়েছে, মোট ১০০টি হস্টেল রুমে স্মার্ট সুইচ মডিউল ইনস্টল করা হয়েছে৷ এর মাধ্যমে যখন কোনও ছাত্র তাঁর রুম ছেড়ে বের হবেন, তখন আপনা আপনি ঘরের পাখা এবং লাইট বন্ধ হয়ে যাবে৷ এ ছাড়া, পড়ুয়ারা ওয়াইফাইয়ের মাধ্যমে স্মার্ট সুইচ বোর্ডের সঙ্গে সংযুক্ত একটি অ্যাপের সাহায্যে রুমে থাকা বিদ্যুতিন যন্ত্রপাতি বন্ধ করতে পারবেন৷ প্রতিষ্ঠানের তরফে অফিসিয়াল একটি বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে যে, এই স্মার্ট সুইচ বোর্ড ব্যবস্থার মাধ্যমে আইআইটি খড়গপুর দেশের সর্ব প্রথম স্মার্ট কলেজ ক্যাম্পাস হয়ে উঠবে৷ শুধু তাই নয়৷ প্রতি মাসে যে পরিমাণ বিদ্যুৎ খরচ হয়, তার ২০ শতাংশ বাঁচানো যাবে এই ব্যবস্থার সাহায্যে৷

আইআইটি খড়গপুরের ২১০০ একর ক্যাম্পাসটিতে ওয়াইফাই রয়েছে৷ পাঁচ হাজারটি হস্টেল রুম রয়েছে৷ যার মধ্যে ১০০টি রুমকে স্মার্ট ইলেক্ট্রিফিকেশন মডিউলের আওতায় আনা হয়েছে৷ যা একটি অ্যাপের মাধ্যমে পরিচালনা করা যাবে৷ এই স্মার্ট সুইচ প্রোডাক্টটি তৈরি করেছে অ্যালাইভ হোম নামের একটি নতুন কোম্পানি৷ এই কোম্পানিটি চালু করেছেন সম্প্রতি স্নাতক পাশ এক পড়ুয়া এবং আইআইটি খড়গপুরের বর্তমান কিছু পড়ুয়া মিলে৷ প্রধানত বি২বি (বিজনেজ টু বিজনেজ) এবং বি২সি (বিজনেজ টু কনজিউমার)-তে বানিজ্যিক ব্যবহারের জন্যই এই মডিউলটি তৈরি করেছেন তাঁরা৷

এই মডিউলের হার্ডওয়্যার ও সফ্টওয়্যার তৈরির কাজ প্রতিষ্ঠানের উদ্ভাবন ল্যাবরেটরিতেই হয়েছে৷ ক্যাম্পাসে সুরক্ষিতভাবে এবং সফলভাবে ইনস্টল করার জন্য আইআইটি খড়গপুরের ইলেকট্রিক্যাল এবং মেনটেনেন্স ওয়ার্কস বিভাগ এটি পরীক্ষা করে অনুমোদন দিয়েছে৷ এই গোটা ব্যবস্থাটি তৈরি এবং ব্যবহারের কাজে পরামর্শ দিয়েছেন আইআইটি খড়গপুরের রাজেন্দ্র মিশ্র স্কুল অফ ইঞ্জিনিয়ারিং এন্টারপ্রেনরশিপের অধ্যাপক পিকে ডান৷

অধ্যাপক পিকে ডান বলেন, ‘‘এই পণ্যটির প্রধান সুবিধা হল কম দাম৷ যা বাজারে প্রচলিত একই রকম পণ্যের তুলনায় ৫০ শতাংশ পর্যন্ত কম৷ এই পণ্যের আর একটি দিক হল যে, এটি বি২বি এবং বি২সি দু’ধরনের ক্রেতারই চাহিদা মতো তৈরি করা যাবে৷’’