ইসলামাবাদ: আগেই ঠিক হয়েছিল স্বাধীনতা অনুষ্ঠানের পূর্বে প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ গ্রহণ করবেন ইমরান খান৷ আপাতত যা খবর জানা যাচ্ছে তাতে আসন্ন পাক স্বাধীনতা দিবসে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা এবারের মতো হচ্ছে না ইমরান খানের৷ আগামী ১৮ অগস্ট তিনি শপথ নিতে চলেছেন৷ আর ১৪ অগস্ট পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস৷

পাক সংবাদমাধ্যম জিও টিভি জানাচ্ছে দেশের নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী পদে ইমরান খান বসতে পারেন ১৮ তারিখ৷ এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকছেন তাঁর ক্রিকেটীয় জীবনের অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী তথা ভারতীয় তিন ক্রিকেটার গাভাস্কর, কপিল দেব এবং সিধু৷ এঁরা প্রত্যেকেই আমন্ত্রণ পত্র পেয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন৷ জিও টিভি জানিয়েছে, শপথ গ্রহণের জন্য প্রেসিডেন্ট মামুন হুসেন তাঁর স্কটল্যান্ড সফর বাতিল করেছেন৷ কেননা তাঁকেই শপথ বাক্য পাঠ করাতে হবে৷ ইমরানের শপথের পরই স্কটল্যান্ড সফরে যাবেন তিনি৷

Advertisement

তবে ইমরান খানের প্রধানমন্ত্রী হওয়া নিয়ে জোট জটিলতা এখনও অব্যাহত৷ সদ্য সমাপ্ত পাক জাতীয় নির্বাচনে ২৭২টি আসনের মধ্যে ১১৬টি আসনে জয় পেয়েছে পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ দল৷ তারা বৃহত্তম হলেও পার্লামেন্টে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করতে পারেনি৷ এর জন্য দরকার ১৩৭টি আসন৷ এখানেই জটিলতা৷ বিরোধী হয়ে যাওয়া পাকিস্তান পিপলস পার্টি ও সদ্য ক্ষমতা হারানো পাকিস্তান মুসলিম লিগ(নওয়াজ) যতগুলি আসনে জিতেছে তাদের মোট আসন সংখ্যা ইমরান খানকে চিন্তায় রাখছে৷

যদিও ইমরানের দলের মুখপাত্র ফওয়াদ চৌধুরী জানিয়েছেন, ঘাটতি থাকা আসন পূরণ করতে কতগুলি ছোট দলের সঙ্গে আলোচনা চলছে৷ কিন্তু তার দাবি মতো এখনও কোনও দল সরাসরি ইমরান খানকে সমর্থন জানায়নি৷ এই পরিস্থিতিতে পিপিপি ও পিএমএল(এন) এবং আরও দু-একটি দলের জোট সম্ভাবনা আরও বাড়ল৷ এই বিরোধীরা যদি যৌথভাবে প্রধানমন্ত্রী প্রার্থীর নাম তুলে ধরে তাহলে কুর্সিতে বসা কঠিন ইমরান খানের কাছে৷

----
--