‘২০১৯ সালে ব্রিটেনকে ছাড়িয়ে ভারত পঞ্চম বৃহত্তম অর্থনীতি’

নয়াদিল্লি: আগামী বছরেই ব্রিটেনকে ছাড়িয়ে ভারত এবার পঞ্চম বৃহত্তম অর্থনীতি হবে যদি প্রকল্পে মতো খরচে অনুযায়ী অর্থনৈতিক সম্প্রসারণ চলতে থাকে ৷ শুক্রবারে এমনটাই জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরুণ জেটলি৷ তবে আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম বৃদ্ধি এবং বাণিজ্য যুদ্ধের জন্য নতুন চ্যালেঞ্জ তৈরি করছে বলে তিনি জানান৷

সম্প্রতি বিশ্ব ব্যাংকের রিপোর্ট অনুসারে ফ্রান্সকে পিছনে ফেলে দিয়ে বৃহত্তম অর্থনীতি হিসেবে ভারতের স্থান ষষ্ঠ৷ ফ্রান্সের স্থান হয়েছে সপ্তম৷ ওই তালিকায় শীর্ষে রয়েছে আমেরিকা৷ ত পরে রয়েছে চারটি দেশ যথাক্রমে চিন, জাপান, জার্মানি এবং ব্রিটেন৷

- Advertisement -

নতুন হিসেব করা হয়েছে ২০১৭ সালে ভারতের পার্ফম্যান্সের উপর ভিত্তি করে৷ ২০১৭ সালের শেষে ভারতের জিডিপি হয়েছে ২.৫৯৭ ট্রিলিয়ন ডলার৷ যেখানে ফ্রান্সের গত বছরে ছিল ২.৫৮২ ট্রিলিয়ন ডলার৷ এপ্রিল মাসে যেখানে অপরিশেধিত তেলের দাম ব্যারেল প্রতি ৬৬ ডলার ছিল সেটাই এখন হয়েছে ৭৫ ডলার৷ চলতি বছরে ভারতের অর্থনৈতিক বৃদ্ধি ধরা হচ্ছে ৭-৭.৫ শতাংশ যা গত বছরের তুলনায় বেশি যেহেতু ২০১৭-১৮ সালে ছিল ৬.৭ শতাংশ ৷

বিশ্ব ব্যাংকের তথ্য বলছে সপ্তম ফ্রান্সকে পিছনে ফেলে ষষ্ঠ বৃহত্তম অর্থনীতি হলেও দুই দেশের লোকসংখ্যার পার্থক্যজনিত কারণে মাথাপিছু আয়ের ফারাকটা যথেষ্ঠই বলেতিনি জানান৷

তবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকার গ্রামীণ ভারতের কম সুবিধাভোগীরা সম্পদের প্রথম অধিকার পাচ্ছে৷ যদি ব্যয় বৃদ্ধির সঙ্গে এই ধারাবাহিকতা আগামী দশকে বজায় থাকে তাহলে গ্রামের দরিদ্র অবস্থার উন্নতি হবে৷

তিনি জানান ১৯৭০, ১৯৮০দশকে কংগ্রেস জনপ্রিয় স্লোগান আনলেও তেমন সুদৃঢ় নীতি প্রণয়ন করেনি দরিদ্রদের কল্যাণার্থে৷ ১৯৭১ সালে ছিল ‘গরিবি হঠাও’ মডেল গ্রহণ করলেও তারজন্য প্রয়োজনীয় সম্পদ উৎপাদনের কোনও ব্যবস্থা করেনি৷ তার বদলে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী প্রকৃত কথার এবং কাজের মানুষ বলে তিনি দাবি করেছেন৷ সরকারি কর্মসূচির জেরে গ্রামের মানুষের আয় বাড়ছে সামাজিক নিরাপত্তা বাড়ছে উন্নতি হয়েছে তাদের জীবনযাত্রার মান৷

Advertisement ---
-----