চোখের সামনেই পুড়ল দু’ছেলে, কাজে এল না মায়ের শেষ রক্ষার চেষ্টা

স্টাফ রিপোর্টার, খন্ডঘোষ: বাড়িতে আগুন লেগে মায়ের সামনেই মর্মান্তিক মৃত্যুর হল দুই ছেলের৷ আহত মাকে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷ চলছে যমে-মানুষে টানাটানি৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার রাতে খণ্ডঘোষের কামদেবপুর গ্রামের বাসিন্দা পোলট্রি ব্যবসায়ী সেখ ফজুর খড়ের চালের বাড়িতে ইলেকট্রিক মিটারবক্স থেকে আচমকা আগুন ধরে যায়৷ সেই সময় সেখ ফজু বাড়িতে ছিলেন না৷ তাঁর স্ত্রী মমিনা ওরফে খুকু বেগম বাড়ির বাইরে কাজে ব্যস্ত ছিলেন৷ ঘরের মধ্যে ঘুমিয়ে ছিল বড় ছেলে সেহারা চন্দ্রকুমার ইন্সটিটিউশনের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র মফিজুল সেখ (১২) ও ছোট ছেলে মহিদুল সেখ (৬)।

আচমকা আগুন লেগে গোটা ঘর জ্বলতে শুরু করায় খুকু বেগম ছুটে ঘরে ঢুকে ছেলেদের উদ্ধার করতে যান৷ কিন্তু তিনি নিজেই গুরুতর জখম হন৷ তাঁর চোখের সামনেই জীবন্ত ছোট ছেলে পুড়ে মারা যায়৷ গুরুতর জখম হয় বড় ছেলে৷ আগুন লাগার ঘটনা স্থানীয় মসজিদ থেকে মাইকে ঘোষণা করা হয়৷ স্থানীয় গ্রামবাসী সুরাবুদ্দিন শেখ জানান, মসজিদের ঘোষণা শুনে তাঁরা ছুটে যান ওই বাড়িতে৷ পাশের গ্রাম থেকে গাড়ি জোগাড় করে সকলকেই বর্ধমান মেডিক্যালে পাঠানো হয়৷ বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাবার পর চিকিৎসক ছোট ছেলে মহিদুল সেখকে মৃত ঘোষণা করেন৷ মঙ্গলবার ভোরে মারা যায় মফিজুল সেখও৷ খুকু বেগমকে চিকিৎসার পর এদিন হাসপাতাল থেকে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়৷

Advertisement
----
-----