বাংলায় সস্ত্রীক মেডিটেশন হলেও যোগে নেই আইএমএ

বিশ্বজিৎ ঘোষ, কলকাতা: চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগে রোগীর ক্ষুব্ধ ‘পরিজন’দের কাছে আক্রান্ত হওয়ার পরেও যাতে শান্ত থাকতে পারেন চিকিৎসকরা, তার জন্য সস্ত্রীক মেডিটেশনের ব্যবস্থা হয়েছিল৷ অথচ, আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে কোনও কর্মসূচি রাখা হয়নি৷

আর, তার জেরেই, বিভিন্ন মহলে চলছে বিতর্ক৷ এ দিকে, সমাজের বিভিন্ন অংশের আরও বেশি সংখ্যক মানুষ যাতে যোগ অনুশীলনে অভ্যস্ত হয়ে উঠতে পারেন, তার জন্য প্রচেষ্টা জারি রেখেছে কেন্দ্রীয় সরকার৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও আন্তর্জাতিক যোগ দিবসের শিবিরে অংশগ্রহণ করেন৷ এবং, প্রধানমন্ত্রীকে দেখে সমাজের বিভিন্ন অংশের আরও অনেক মানুষ যোগ অনুশীলনের জন্য উদ্বুদ্ধ হয়ে উঠছেন৷

তবে, শুধুমাত্র বিতর্ক নয়৷ এই ধরনের পরিস্থিতির মধ্যেই বিভিন্ন মহলে এমন অভিযোগও উঠছে, সস্ত্রীক মেডিটেশনের জন্য ব্যবস্থা করা হলেও, মতের ফারাক থাকার কারণে যোগ দিবসে কোনও কর্মসূচি গ্রহণ করেনি ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (আইএমএ)-এর পশ্চিমবঙ্গ শাখা৷ এমন অভিযোগের কারণ হিসাবে এই ধরনের যুক্তিও দেওয়া হচ্ছে, আইএমএ-র রাজ্য শাখার কমিটিতে রয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থিত চিকিৎসকরা৷

শুধুমাত্র তাই নয়৷ আইএমএ-র রাজ্য সম্পাদক, চিকিৎসক শান্তনু সেন বর্তমানে রাজ্যসভায় তৃণমূল কংগ্রেসের সদস্য৷ যদিও, আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে কর্মসূচি গ্রহণ না করার ক্ষেত্রে এই ধরনের রাজনৈতিক মত পার্থক্যের বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ নয় বলে মনে করেন ওয়াকিবহাল মহলের বিভিন্ন অংশ৷ এর কারণ হিসাবে ওই সব অংশে এমন যুক্তিও দেওয়া হচ্ছে, স্বাস্থ্য সুরক্ষায় যোগের বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ৷ তার উপর, ২০১৫ থেকে ২১ জুন আন্তর্জাতিক যোগ দিবস পালিত হচ্ছে৷ এই ধরনের পরিস্থিতিতে রাজনৈতিক মত পার্থক্যের বিষয়টি গৌণ৷ যোগের বিষয়টি রাজনীতির ঊর্ধ্বে৷

আরও পড়ুন: মার খেলে কাজে আসবে ডাক্তারদের সস্ত্রীক মেডিটেশন? শান্ত-‘ওষুধে’ বিতর্ক

তা হলে, সমস্যা কোথায়? আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে রাজ্য আইএমএ-র কোনও কর্মসূচি না থাকার কারণ কী? তা হলে, যোগের বিষয়ে অন্য কোনও পরিকল্পনা রয়েছে? এমনই বিভিন্ন বিষয়ে আইএমএ-র রাজ্য সম্পাদক, চিকিৎসক শান্তনু সেনের বক্তব্য জানার জন্য তাঁর সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হয়৷ আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে রাজ্য আইএমএ কোনও আর্জি রাখছে? ২১ জুন কোনও কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে? আইএমএ-র রাজ্য সম্পাদক বলেন, ‘‘বৈঠকে আছি৷ পরে কথা বলব৷’’ তবে, পরে তাঁকে একাধিকবার ফোন কল করা হলেও তাঁর কোনও বক্তব্য মেলেনি৷

যদিও, আইএমএ-র দক্ষিণ কলকাতা শাখার সভাপতি, চিকিৎসক রামদয়াল দুবে বলেন, ‘‘আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে আইএমএ-র রাজ্য শাখার কোনও কর্মসূচি নেই৷’’ অন্য কর্মসূচির কারণে, আইএমএ-র দক্ষিণ কলকাতা শাখার তরফে ২১ জুন কোনও কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়নি বলেও তিনি জানিয়েছেন৷ গত বছর ডিসেম্বর মাসে চিকিৎসকদের জন্য রাজ্য আইএমএ সস্ত্রীক মেডিটেশনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছিল৷ তা হলে, আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে রাজ্য আইএমএ-র তরফে কোনও কর্মসূচি গ্রহণ করা কি উচিত নয়? তিনি বলেন, ‘‘আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে আইএমএ-র কর্মসূচি গ্রহণ করা উচিত৷’’

Advertisement
---
-----