নির্দল প্রার্থীর বাড়ি গিয়ে বিক্ষোভের মুখে তৃণমূল বিধায়ক

স্টাফ রিপোর্টার, সিঙ্গুর: রাতের অন্ধকারে নিজের ঘনিষ্ঠ নির্দল প্রার্থীর বাড়িতে যাওয়ার অভিযোগে দলেরই অপর গোষ্ঠীর হাতে ঘেরাও হলেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা সিঙ্গুরের বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য৷ অভিযোগ, হরিপালের তৃণমূল বিধায়ক বেচারাম মান্নার লোকজনই এই বিক্ষোভ দেখান৷

রবীন্দ্রনাথবাবুকে শুনতে হয় ‘গো ব্যাক’ স্লোগান৷ হাওয়া খারাপ বুঝে কোনওমতে গাড়িতে উঠে এলাকা থেকে সরে পড়েন তিনি৷ বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷ ফের প্রকাশ্যে এসেছে শাসকদলের অন্তর্কলহ৷

স্থানীয় সূত্রের খবর, সিঙ্গুরের বলরামবাটি গ্রাম পঞ্চায়েতের রাজারামবাটি গ্রামে এবারে নির্দল প্রার্থী শেখ নাসির রবীন্দ্রনাথবাবুর ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত৷ দলের প্রতীক না পেয়ে তিনি লড়ছেন নির্দল হিসেবে৷ কারণ, সংশ্লিষ্ট আসনে এবারে দলের প্রতীক পেয়েছেন বেচারাম মান্নার ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত সমীর আলি মোল্লা।

- Advertisement -

বুধবার রাত ৯টা নাগাদ রাজারামবাটি গ্রামে নাসিরের বাড়িতে যান বিধায়ক৷ নির্দল প্রার্থীর বাড়ির সামনে দলের স্থানীয় বিধায়কের গাড়ি দাঁড়িয়ে থাকতে দেখার খবর দ্রুত পৌঁছে যায় সমীরের কাছে৷

সূত্রের খবর, এরপরই জনা তিরিশেক লোক নিয়ে নাসিরের বাড়ির সামনে চলে আসেন বেচারাম ঘনিষ্ঠ সমীর৷ বিধায়ককে ঘর থেকে বের করে তাঁরা জানতে চান, কেন রাতের অন্ধকারে তিনি নির্দল প্রার্থীর বাড়িতে এসেছেন? শুরু হয় তুমুল বিক্ষোভ, সঙ্গে ‘গো ব্যাক স্লোগান’৷

ঘটনার জেরে গ্রামবাসীদের কাছে বেআব্রু হয়ে যায় শাসকের অন্তর্কলহ৷ স্থানীয় কয়েকজনের সহযোগিতায় অবশেষে মিনিট ১৫ পরে ঘেরাও মুক্ত হয়ে কোনও রকমে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে হাফ ছেড়ে বাঁচেন বিধায়ক৷

দলীয় সূত্রের খবর, হুগলির সিঙ্গুরে বেচারাম মান্না বনাম রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্যর কোন্দল সুবিদিত৷ রাজ্য নেতৃত্বও এই কোন্দল থামাতে ব্যর্থ হয়েছেন৷ যার জেরে এবারে সিঙ্গুর পঞ্চায়েত সমিতি, গ্রাম পঞ্চায়েত ও জেলাপরিষদের প্রায় প্রতিটি আসনেই রবীন্দ্রনাথ বনাম বেচারাম গোষ্ঠীর প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে।

কোনও ক্ষেত্রে দলের প্রতীক পেয়েছেন রবীন্দ্রনাথ ঘনিষ্ঠরা, কোনও ক্ষেত্রে বেচারাম ঘনিষ্ঠ৷ যেখানে যাঁরা দলের প্রতীক পাননি, তাঁরা দাঁড়িয়ে পড়েছেন নির্দল টিকিটে৷ এবিষয়ে রবীন্দ্রনাথবাবু কিংবা বেচারাম মান্না কেউই কোনও মন্তব্য করতে চাননি৷ তবে রবীন্দ্রনাথবাবুর ঘনিষ্ট মহলের দাবি, নাসিরের বাড়িতে গতরাতে বিধায়ক গিয়েছিলেন সবেবরাতের নিমন্ত্রণ রক্ষা করতে।

Advertisement ---
-----