‘বাংলাদেশের নির্বাচনে ভারত কখনও হস্তক্ষেপ করেনি’

ঢাকা: বাংলাদেশের আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে কোনও বিদেশি শক্তির হস্তক্ষেপ করার সুযোগ নেই৷ আগেও হয়নি৷ এমনই বার্তা দিলেন ক্ষমতাসীন আওয়ামি লিগেরে সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের৷ সম্প্রতি তাঁর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল দিল্লিতে গিয়ে ভারতে ক্ষমতাসীন বিজেপি তথা এনডিএ জোটের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে৷ এরপরেই বিএনপি সহ বিরোধী বিভিন্ন দলের অভিযোগ, নির্বাচনে জয় পেতেই ভারতের সাহায্য নিতে চায় শেখা হাসিনার দল৷

বুধবার এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন আওয়ামি লিগের সাধারণ সম্পাদক৷ তিনি বলেছেন, ভারত এযাবৎ আমার জানা মতে কখনো হস্তক্ষেপ করেনি। আমরা তো ক্ষমতার জন্য ভারতে যাইনি।

এদিকে নির্বাচনের আগে নয়াদিল্লি সফরে গিয়েছেন বিএনপি-র শীর্ষ নেতৃত্ব৷ অভিযোগ উঠছে, এবার তারা ভারতের হস্তক্ষেপ চেয়ে জাতীয় নির্বাচনের লড়াইয়ে নামতে চায়৷ যদিও বিএনপি নেতৃত্বের দাবি, প্রতিবেশী তথা বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের সঙ্গে সৌহার্দ্যপূর্ণ আলোচনা করতেই দিল্লি সফর হয়েছে৷ এদিকে বিএনপির শীর্ষ নেত্রী তথা প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের দুর্নীতি মামলায় কারাদণ্ড ভোগ করছেন৷ তিনি অসুস্থ বলে দাবি করেছেন বেগম জিয়ার চিকিৎসকরা৷ এর জেরে সরকার অস্বস্তিতে৷ বিএনপি নেত্রীর চিকিৎসা দেশেই খুব ভালো সম্ভব বলেই জানিয়েছেন ওবায়দুল কাদের৷

- Advertisement -

তবে জাতীয় নির্বাচন প্রসঙ্গে আওয়ামি লিগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমরা ভারতে গিয়ে তিস্তার কথা বলেছি, রোহিঙ্গা সমস্যা, আমাদের জাতীয় স্বার্থ নিয়ে কথা বলেছি। বিএনপি জাতীয় স্বার্থ নিয়ে কি কোনও কথা বলেছে? কোনও পত্র-পত্রিকায় তো দেখলাম না। কোনও মিডিয়ায় কোনও খবর আছে?’ তিনি বলেন, বিএনপি গেছে নির্বাচনে তাদের সাহায্য করতে এবং নালিশ করতে। ভারত একটি গণতান্ত্রিক দেশ। আমাদের দেশের নির্বাচন, আমাদের দেশের জনগণ যে রায় দেবে সেই ক্ষমতায় আসবে। রায়টাই এখানে বড় কথা। এখানে ভারত কি আমাদের দেশের জনগণকে প্রভাবিত করবে?

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিদেশিদের কাছে নালিশ করা কোনও রাজনৈতিক দলের পরিচয় হতে পারে না। বিএনপির এখন নালিশ ছাড়া আর কিছু করার নেই। দেশে বসেও নালিশ, বিদেশে গেলেও নালিশ। নালিশ আর নালিশ দিয়ে এ দেশের দূতাবাসকে রীতিমতো তটস্থ রেখেছে বিএনপি। নালিশ করে রেজাল্ট কী হবে, সবাই জানে। তিনি আরও বলেন, কথায় কথায় দেশে অভ্যন্তরীণ ব্যাপার নিয়ে বিদেশিদের কাছে নালিশ করা দেশের জন্য শুভ নয়। এটা দায়িত্বশীল রাজনৈতিক দলের পরিচয় হতে পারে না।

Advertisement
---