ঢাকা: তরুণ তুর্কিদের নিয়ে সাফে ভারতের স্বপ্নের দৌড় অব্যাহত। সেমিফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানকে হারিয়ে শনিবার ফাইনালে মলদ্বীপের বিরুদ্ধে ফেভারিট হিসেবে নামছে কনস্ট্যানটাইনের ছেলেরা।

আরও পড়ুন: স্বপ্নার জন্য বিশেষ জুতো অ্যাডিডাসের

Advertisement

মূলত অনূর্ধ্ব-২৩ ফুটবলারদের নিয়ে গড়া স্টিফেন কনস্ট্যানটাইনের ভারত এখনও পর্যন্ত টুর্নামেন্টের একমাত্র অপরাজিত দল। অষ্টমবার খেতাবের লক্ষ্যে গ্রুপ পর্বে ইতিমধ্যেই মলদ্বীপকে হারিয়েছে ‘মেন ইন ব্লু’। সেই ম্যাচে ভারত ২-০ গোলে জিতলেও প্রথম সারির তিন ফুটবলারকে ছাড়াই মাঠে নেমেছিল মলদ্বীপ। গুরুত্বপূর্ণ ফাইনালের আগে তাই বেশ সাবধানী ভারতীয়দের ব্রিটিশ কোচ। মলদ্বীপ ছাড়াও গ্রুপ পর্বে প্রতিবেশী শ্রীলঙ্কাকে ভারত হারিয়েছে ২-০ গোলে। সেমিফাইনালে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের পক্ষে ম্যাচের ফল ছিল ৩-০। ট্র্যাক রেকর্ড হোক কিংবা চলতি টুর্নামেন্টে পারফরম্যান্স, ফাইনালের আগে সব পরিসংখ্যানের দিক দিয়েই এগিয়ে ভারত।

আরও পড়ুন: সুপার স্যাটার ডে’তে লিভারপুল-টটেনহ্যাম দ্বৈরথ

দক্ষিণ এশিয়ার এই ফুটবল টুর্নামেন্টে ভারত যেখানে সাতবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে, সেখানে ২০০৮ মাত্র একবারই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে মলদ্বীপ। ২০০৩ বাদ দিলে প্রতিবারই টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলেছে ভারত। তাই ধারেভারে কয়েকযোজন এগিয়ে থেকেই আগামীকাল মাঠে নামবে নিখিল পূজারি, সালাম রঞ্জন সিং’রা।

শেষবার ২০০৯ ঢাকার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে সাফের ফাইনালে মুখোমুখি হয়েছিল এই দুই দল। নির্ধারিত সময়ের পর অতিরিক্ত সময়ও গোল শুন্য থাকায় টাইব্রেকারে জিতে চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত। কিন্তু শনিবারের হাইভোল্টেজ ফাইনালে ২০০৯’র পুনরাবৃত্তি চাইছেন না কনস্ট্যানটাইন। মলদ্বীপকে হালকাভাবে না-নিলেও নির্ধারিত সময়েই ম্যাচের নিষ্পত্তি চাইছেন তিনি। ভারতের কোচের কথায়, ‘সেমিফাইনালে মলদ্বীপ তাদের আসল শক্তি দেখিয়ে দিয়েছে। ফাইনালের আগে নেপালের বিরুদ্ধে ৩-০ ব্যবধানে জয় সহজ ব্যাপার নয়। তাই তাদের হালকাভাবে নেওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই।’

আরও পড়ুন: বিরাটের অনুপস্থিতিতে এশিয়া কাপের ইউএসপি ভারত-পাক মহারণ

সেমিফাইনালে ‘পাক বধ’-এর নায়ক মনবীরের কথায়, ‘ফাইনালেও একইরকম পারফরম্যান্স দিতে আমরা বদ্ধপরিকর। সেমিফাইনালেও কাজটা খুব একটা সহজ ছিল না। তবে দলগত প্রচেষ্টাই আমাদের কাজটা সহজ করে দিয়েছে।’ তিন গোল করে এই মুহূর্তে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতা তিনিই।

অন্যদিকে শেষ চারের লড়াইয়ে নেপালকে ৩-০ গোলে হারিয়ে ফাইনালের আগে আত্মবিশ্বাসী মলদ্বীপও। শক্তিশালী ভারতকে হারিয়ে পাশা উলটে দিতে মরিয়া দ্বীপরাষ্ট্রটি। অধিনায়ক আক্রম আব্দুলের কথায়, ‘গ্রুপ পর্বে কিছুটা সমস্যায় পড়লেও আমরা এখন ফাইনালে। আর পিছনে তাকাতে চাই না। গত ন’বছর আমরা টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলতে পারিনি। এটা আমাদের কাছে দারুণ একটা সুযোগ। চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্য আমরা প্রস্তুত।’

----
--