আফ্রিকান সাফারিতে ইতিহাস তৈরির সামনে বিরাটের ভারত

কেপ টাউন: আফ্রিকান সাফারিতে ধীরে ধীরে ঘুম ভাঙছে ব্লু বিগ্রেডের৷ টেস্ট সিরিজ হাতছাড়া হলেও শেষ টেস্ট জিতে অক্সিজেন পেয়েছিল বিরাটবাহিনী৷ তার পর ছ’ ম্যাচের ওয়ান ডে সিরিজের প্রথম দু’টি ম্যাচ জিতে নিয়ে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে থাকা বিরাটদের চোখ এখন ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে যাওয়াতে৷

বুধবার নিউল্যান্ডসে এক নতুন ইতিহাস তৈরির হাতছানি বিরাটদের সামনে৷ দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে খেলা ওয়ান ডে সিরিজ গুলিতে একবারও টানা তিনটি ম্যাচ জয়ের রের্কড নেই ভারতের৷ ১৯৯২-৯৩ ও ২০১০-১১ ওয়ান ডে সিরিজে প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে ২টি করে ম্যাচ জিতেছিল ‘মেন ইন ব্লু’৷ যদিও ওই বছরগুলিতে ২-৫ ও ২-৩ সিরিজ হেরেছিল ভারত৷

আরও পড়ুন: একাদশ আইপিএলে ফের দেখা যেতে পারে এ দৃশ্য

- Advertisement -

আঙুলে চোট পেয়ে পুরো ওয়ান ডে সিরিজ থেকে বাদ পড়ছেন দক্ষিণ আফ্রিকা ব্যাটিংয়ের দুই স্তম্ভ এবি ডি’ভিলিয়ার্স ও ফ্যাফ ডু’প্লেসি৷ ডারবান ও সেঞ্চুরিয়নে ভারতের কাছে যথাক্রমে চার ও ন’ উইকেটে হেরেছে চোটগ্রস্ত প্রোটিয়াশিবির৷ স্বাভাবিকভাবেই দলের সেরা তিন খেলোয়াড়কে হারিয়ে প্রোটিয়া ক্রিকেটারদের আত্মবিশ্বাস এখন তলানিতে৷

ঠিক উলটো ছবি ভারতীয় শিবিরে৷ প্রথম দু’টি ম্যাচের স্কোরই বলে দিচ্ছে কেমন ফর্মে রয়েছেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা৷ ডারবানে প্রথম ম্যাচে ১১২ রানের একটি অনবদ্য ইনিংস খেলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট৷ সেঞ্চুরিয়নের দ্বিতীয় ম্যাচটিতেও ৪৬ রানে অপরাজিত খেলে দলকে জেতান ক্যাপ্টেন কোহলি৷ প্রথম দু’টি ম্যাচে রান পেয়েছেন ওপেনার শিখর ধাওয়ানও৷ দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যাট করতে না-পারলেও প্রথম ম্যাচে ৮৬ বলে ৭৯ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলেছেন অজিঙ্ক রাহানে৷

আরও পড়ুন: ‘৭২ ঘন্টায় জীবন পাল্টায়নি’

তবে দু’টি ম্যাচেই প্রোটিয়া বধে বড় অস্ত্র ছিল ভারতের জোড়া রিস্ট স্পিনার চাহাল-কুলদীপ৷ প্রথম দুটি ম্যাচে এই দুই স্পিনারের যুগ্ম সংগ্রহ ১৩টি উইকেট৷ স্বাভাবিকভাবেই এবি ডি’ ভিলিয়ার্স ও ফ্যাফ ডু’প্লেসিহীন দক্ষিণ আফ্রিকাকে তাদের ঘরের মাঠে হারানোর দারুন সুযোগ বিরাটদের সামনে৷

মহম্মদ আজাহারউদ্দিন, রাহুল দ্রাবিড়, মহেন্দ্র সিং ধোনি যা পারেননি সেই ইতিহাসের সন্ধিক্ষণে অধিনায়ক বিরাট৷ বুধবার নিউল্যান্ডসে বিরাট প্রত্যাশায় তাকিয়ে থাকবেন ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীরা৷

আরও পড়ুন: স্পট-ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে বাটকে ক্লিনচিট আইসিসি’র

Advertisement ---
---
-----