‘রাজ্যের জন্য বিশ্বের দরবারে মাথা হেঁট ভারতের’

বিশেষ প্রতিবেদন, আলিপুরদুয়ার: লালগড়ের বাঘের মৃত্যুতে কাঠগড়ায় উঠেছে বন দফতর৷ রাজ্যের ওই দফতরের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ আর এই ঘটনার জেরে বিশ্বের দরবারে ভারতের মাথা হেঁট হয়ে গেল বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা৷

রাজ্যের প্রাক্তন প্রধান মুখ্য বনপাল সম্পৎ সিং বিস্ট দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বলেছেন, ‘‘এত চরম অপদার্থতার নজির। ছিঃ, সারা বিশ্বের দরবারে মাথা হেট হ’ল।’’ তাঁর দাবি, এ নিয়ে তিনি বন দফতরের কর্তাদের পরামর্শ দিয়েছিলেন৷ কিন্তু সেকথা যে ওই কর্তারা কানেই তোলেননি, তা শুক্রবারের ঘটনার পর প্রমাণ হয়ে গেল৷

তাই তাঁর প্রশ্ন, ‘‘প্রাকৃতিক উপায়ে লালগড়ে চলে আসা একটি বাঘকে আগলে রাখতে পারল না তারা৷ আবার বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পে ভিন রাজ্য থেকে বাঘ আনার খোয়াব দেখছে? ওই কাজে হাত দেওয়ার আগে দশবার ভাবা উচিত।’’

- Advertisement -

এই ঘটনার পর ন্যাশনাল টাইগার কনজারভেশন অথরিটি ব্যবস্থা নেবে বলেও তিনি মনে করছেন৷ আর সেকথাই শোনা গিয়েছে, ন্যাশনাল টাইগার কনজারভেশন অথরিটির এআইজি বৈভবচন্দ্র মাথুরের গলায়৷ তিনি বলেছেন, ‘‘মারাত্মক কোনও গাফিলতি প্রকাশ্যে আসার সম্ভাবনা রয়েছে। আর তা যদি বাস্তবে হয়ে থাকে, তবে তা অমার্জনীয় অপরাধ হিসেবে চিহ্নিত হবে। রাজ্য সরকার সেই দায় কিছুতেই এড়াতে পারবে না। আমরা রাজ্য বনদফতরকে দুদিন সময় দিয়েছি। তার মধ্যে গোটা ঘটনার পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট আমরা চাই। প্রয়োজনে ঘটনাস্থলে গিয়ে আমরা নিরপেক্ষ তদন্ত করে সত্যতা যাচাই করে দেখবো।’’

অন্যদিকে ভারত সরকারের বন্যপ্রাণ শাখার আইজি সৌমিত্র দাশগুপ্তর কথায়, ‘‘অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। এটা মানা যায় না। ঠিক কী কারণে কাদের গাফিলতিতে ওই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে সেই গ্রাউন্ড রিপোর্ট এখনও আসেনি। রিপোর্ট পাওয়া মাত্রই যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।”

Advertisement ---
---
-----