ওভাল: বিদায়ী টেস্টে অ্যালেস্টার কুকের নাছোড় ব্যাটিং সঙ্গে ভারতীয় বোলারদের ব্যর্থতা। ওভাল টেস্টের প্রথমদিনের প্রথম দুই সেশন দেখে বোঝার উপায় ছিল না কোহলিরা ফিরে আসবেন ম্যাচে। তৃতীয় সেশনে ঈশান্ত শর্মা, জসপ্রীত বুমরার আগুনে বোলিং মাটি ধরিয়ে দিল ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যানদের। সেই সঙ্গে ম্যাচে ফিরে এলেন কোহলিরা।

সিরিজ হাতছাড়া হয়েছে আগেই। খাতায় কলমে ওভালের পঞ্চম টেস্ট এককথায় নিয়মরক্ষার। কুকের বিদায়ী টেস্ট ম্যাচে তাই দলে দুটি পরিবর্তন আনে ভারতের টিম ম্যানেজমেন্ট। গত টেস্টে ডাহা ব্যর্থ অশ্বিনের পরিবর্তে সিরিজে প্রথমবার একাদশে জায়গা করে নেন রবীন্দ্র জাদেজা। পাশাপাশি হার্দিক পান্ডিয়ার পরিবর্তে টেস্ট দলে অভিষেক হয় তরুণ হনুমা বিহারীর।

আরও পড়ুন: কেরিয়ারের শেষ টেস্টে গুচের রেকর্ড ছুঁলেন কুক

সাম্প্রতিক সময় তো বটেই, চলতি সিরিজেও চূড়ান্ত ব্যর্থ কুক জ্বলে উঠলেন বিদায়ী টেস্ট ম্যাচে। জেনিংসের সঙ্গে জুটি বেঁধে এদিন ইংল্যান্ড ইনিংসের শুরুটা দারুণ করেন কুক। সিরিজে প্রথমবার ওপেনিং পার্টনারশিপে পঞ্চাশের উপর রান তোলে ইংল্যান্ড। ৭৫ বলে ২৩ রান করে জেনিংস আউট হলেও তবে টলানো যায়নি কুককে। ১ উইকেটে ৬৮ রান নিয়ে মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে যায় ইংল্যান্ড।

প্রথম সেশনে একবার সফল হলেও দ্বিতীয় সেশনে ওভালের পিচ থেকে কোনরকম ফায়দাই তুলতে পারেননি ভারতীয় বোলাররা। কুক-আলির মন্থর অথচ আত্মবিশ্বাসী ব্যাটিংয়ে তখন দিশেহারা ভারতীয় বোলাররা। ওভালের পিচ থেকে ফায়দা নিতে ব্যর্থ সিরিজে প্রথম সুযোগ পাওয়া জাদেজাও।

আরও পড়ুন: টিম ম্যানেজমেন্টকে নজিরবিহীন আক্রমণ প্রাক্তন ভারত অধিনায়কের

দ্বিতীয় ইংরেজ ব্যাটসম্যান হিসেবে বিদায়ী টেস্টে শতরান কুকের জন্য তখন কেবল সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে হচ্ছিল। মইন আলিকে সঙ্গে নিয়ে দ্বিতীয় সেশনে দলকে চালকের আসনে নিয়ে বসিয়ে দেন প্রাক্তন ইংল্যান্ড অধিনায়ক। টেস্ট ক্রিকেটে ৫৭ তম অর্ধশতরান পূর্ণ করেন কুক। চা বিরতিতে ইংল্যান্ড ১ উইকেট হারিয়ে তোলে ১২৩ রান।

চা বিরতি থেকে ফিরতেই যেন স্বমহিমায় ফিরলেন ভারতের বোলাররা। বিরতি থেকে এসেই দ্রুত কুক এবং রুটের উইকেট তুলে নেন বুমরা। ৭১ রানে আউট হন কুক। গোটা স্টেডিয়াম উঠে দাঁড়িয়ে অভিবাদন জানায় তাঁকে। এরপর শুন্য রানে বেয়ারস্টোকে প্যাভিলিয়নে পাঠান ঈশান্ত। ভারতীয় বোলাররা খোলস ছেড়ে বেরোতেই ব্যাকফুটে চলে যায় ইংল্যান্ড।

আরও পড়ন: কুকের ফেয়ারওয়েল টেস্টে অভিষেক বিহারীর

অর্ধশতরান করে মইন আলি একদিকে লড়াই চালালেও একে একে ফিরে যান স্টোকস, কুরানরা। অর্ধশরান সম্পূর্ণ করেই যদিও আউট হন মইন আলি। ১৩৩ রানে ২ উইকেট থেকে ১৮১ রানে ৭ হয়ে যায় ইংল্যান্ড। দিনের শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ইংল্যান্ডের রান ১৯৮। ক্রিজে রয়েছেন জোস বাটলার এবং আদিল রশিদ।

দ্বিতীয় দিনের শুরুতে খুব শীঘ্র ইংল্যান্ডের বাকি তিন উইকেট তুলে প্রথম ইনিংসে এগিয়ে যাওয়ার লক্ষ্য নিয়েই নামবেন বিরাটরা। গত টেস্টে প্রথম ইনিংসে ৩০-৫০ রান কম হওয়ার ফল ভুগতে হয়েছিল ভারতকে। নিয়মরক্ষার টেস্ট হলেও গত ম্যাচের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে সিরিজে ব্যবধান কমাতে মরিয়া ভারত। প্রথমদিনের তৃতীয় সেশনে সেই ইঙ্গিতই স্পষ্ট।

----
--