অস্ত্র ফেলে ভারত-পাক সেনার এই কীর্তি দেখলে চমকে যাবেন

মস্কো: সীমান্তে কান পাতলেই শোনা যায় গোলাগুলির শব্দ। চিরশত্রু দুই দেশের মধ্যে শুধুই যুদ্ধের গন্ধ। বারুদের গন্ধে যখন বাতাস ভারি, তখন সুদূর রাশিয়ার মাটিতে কিছুটা হালকা মেজাজে ভারত-পাকিস্তান। একসঙ্গে সেনা মহড়ার পর বলিউডের ছন্দে পা মেলালেন দুই দেশের জওয়ানেরা। সেই ভিডিও আপাতত ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ইতিহাস গড়ে সম্প্রতি, একইসঙ্গে মহড়া সারল ভারত ও পাকিস্তানের সেনাবাহিনী। প্রথমবার কোনও মহড়ায় একইসঙ্গে যোগ দিল দুই দেশ। রাশিয়ার শেবারকুলে SCO ড্রিলে একসঙ্গে বিমান ওড়ালেন, ট্যাংক ছোটালেন দুই দেশের জওয়ানরা। সঙ্গে ছিল রাশিয়া, চিনের সেনাবাহিনীও।

মহড় শেষে ‘ভারতীয় দিবস’-এর আয়োজন করে ভারতীয় বাহিনী। সেখানে সব দেশের জওয়ানদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। রীতি মেনে, চিন, পাকিস্তানের কমান্ডারদের তিলক পরিয়ে আরতি করে অভ্যর্থনা জানানো হয় ওই অনুষ্ঠানে। প্রত্যেককে পাগড়িও উপহার দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানের শেষে সবাই মেতে ওঠে নাচে-গানে। যেন এক মুহূর্তে মুছে যায় সব কাঁটাতার। জনপ্রিয় পঞ্জাবি ট্র্যাকে পা মেলান দুই দেশের প্রতিনিধিরা। পরে বলিউডের গানও শোনা যায়।

- Advertisement -

২২ থেকে ২৯ অগস্ট পর্যন্ত চলে এই মহড়া। সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দেশের মধ্যে সংযোগ তৈরি করাই ছিল এই মহড়ার উদ্দেশ্য। চিন, রাশিয়া, কাজাকস্তান, তাজিকিস্তান, ভারত ও পাকিস্তান থেকে অন্তত ৩০০ সৈন্য সেখানে অংশ নেয়।

বায়ুসেনা সহ ভারতের তরফে সেখানে ছিল মোট ২০০ সেনা জওয়ান। ওই মহড়ায় ফায়ারিং, হেলিবোর্ন অপারেশন সহ একাধিক বিষয়ে জোর দেওয়া হয়। এছাড়াও বিল্ডিং-এর ভিতরে ঢুকে কীভাবে শত্রুনিধন করা যায় সেই মহড়াতেও অংশ নেয় ভারত।

বিশেষজ্ঞদের মতে, ভারত ও পাকিস্তানের মত দুটি দেশ যারা সবসময় সামরিক শত্রু হিসেবে থাকে, তাদের মধ্যে বিশ্বাসযোগ্যতা তৈরির একটা বড় সুযোগ এই মহড়া।

Advertisement
---