প্রাথমিক ধাক্কা সামলে ভেসে উঠল রুটদের ‘টাইটানিক’

সাউদাম্পটন: শেষবেলায় জুটিতে লুটি৷ সাউদাপ্টনের প্রথম দিনে শেষ সেশনে নবম উইকেটে ব্রডের সঙ্গে জুটি বেঁধে ৬৩ রান যোগ করে ইংল্যান্ডকে লডা়ইয়ে মঞ্চ তৈরি করে দিলেন তিন টেস্টের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন স্যাম কুরান৷ তাঁর ব্যাটে এল ৭৮ রান৷ বাঁ-হাতি কুরানের এই রান টুকু বাধ দিলে চতুর্থ টেস্টের প্রথম দিনে ‘রাজা’ ভারতীয় বেলাররা৷

কুক-রুটদের শুধু বোতলবন্দি করেই থেমে থাকেননি শামি-বুমরাহের বোলিং৷ ভারতীয় বোলারদের ‘বোমারু’ হানায় এদিন আড়াইশো রানের গণ্ডির আগেই থেমে গেল ইংল্যান্ড৷ রুটদের ইনিংস থামে ২৪৬ রানে৷ তিনটি উইকেট পকেটে পুড়েছেন বুমরাহ৷ শামি,ইশান্ত-অশ্বিনরা ভাগাভাগি করে নিলেন ছটি উইকেট৷ একটি উইকেট হার্দিকের৷

আরও পড়ুন- রুটকে তুলে নিয়ে মাইলস্টোনে পৌঁছলেন ইশান্ত

- Advertisement -

প্রথম দুই সেশন দারুণ বল করলেও শেষ সেশনে তাল কাটল ভারতীয় বোলারদের৷ ইংল্যান্ডের শেষ চার উইকেট তুলে নিতে ভারতীয় বোলাররা খরচ করলেন ১৬০ রান৷ ৮৬ রানে ছয় উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা ইংল্যান্ডকে অলআউট করতে দিনের শেষবেলায় ঘাম ঝড়াতে হল ইশান্তদের৷ প্রাথমিক ধাক্কা সামলে কুরানের ব্যাটে ভেসে উঠল রুটদের ‘টাইটানিক’৷ চতুর্থ টেস্টে ডাক পাওয়া মইল আলি ৪০ রান করেন৷ সপ্তম উইকেটে কুরান-আলির ৮১ রানে পার্টনারশিপ ইংল্যান্ডকে লডা়ইয়ে ফেরায়৷ এর আগে এই কুরানের ব্যাটিংই বার্মিংহ্যাম টেস্টে ফলাফলে ফারাক গড়ে দিয়েছিল৷ দ্বিতীয় ইনিংসে তাঁর ৬৩ রান ম্যাচের পার্থক্য গড়ে দেয়৷ ভারত ম্যাচ হেরেছিল মাত্র ৩১ রানের ব্যবধানে৷

আরও পড়ুন- টাইটানিকের শহরে টস হেরে ফিল্ডিং করছে ভারত

সাউদাম্পটন, এ শহর থেকেই অভিযান শুরু করেছিল টাইটানিক৷ যাত্রার শুরুটা ভাল হলেও শেষটায় বরফ পাথরে ধাক্কা খেয়ে আটলান্টিকের গভীরে তলিয়ে গিয়েছিল৷ চতুর্থ টেস্টের শুরুতে টাইটানিকের মতো নিজেদের পালে হাওয়া রেখেই লড়াইয়ের শুরুটা ভাল করলেন কোহলিরা৷ দিনের একমাত্র ভুল-চুক বলতে শেষবেলায় কুরানকে আউট করতে অনেকটা সময় নিয়ে ফেলা৷ কুরানের ৭৮রান গলার কাঁটার মতো বিঁধতে পারে৷ দিনের শেষে ব্যাট করতে নেমে কোনও উইকেট না হারিয়ে চার ওভারে স্কোরবার্ডে ১৯রান তুলেছে রাহুল-ধাওয়ান জুটি৷ শুরুটা ভাল করে পরিণতিটা টাইটানিকের মতো চাইবে না কোহলিরা৷ বোলারদের কাজ শেষে অগ্নিপরীক্ষা এখন ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের৷

Advertisement
---