শত্রুকে স্তম্ভিত করে ‘শত্রুজিৎ’য়ে বিশাল শক্তিপ্রদর্শন ভারতের

শত্রুপক্ষকে একেবারে টার্গেটে রেখে জোরদার মহড়ায় ভারতীয় সেনাবাহিনী । ‘শত্রুজিৎ’ কোড নামে মহড়া শুরু হয়ে গিয়েছে একেবারে পাক সীমান্তের কাছে থর মরুভূমিতে। কৃত্রিম নিউক্লিয়ার, কেমিক্যাল ও বায়োলজিক্যাল ওয়ারফেয়ার এনভায়রনমেন্ট তৈরি করে চলছে মহড়া। যাতে যে কোনও অবস্থাতেই শত্রুপক্ষকে আঘাত করতে সুবিধা হয়।

tank

মহড়ায় অংশ নিয়েছে বায়ুসেনা। আকাশ থেকে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ, প্যারা-ড্রপিং-এ বায়ুসেনা এখন কতটা দক্ষ তারই প্রদর্শনী চলছে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সূত্রের খবর, পাক সীমান্তের একেবারে গায়ে ২০০০-৩০০০ জওয়ানকে প্যারা-ড্রপিং করে নামাচ্ছে বায়ুসেনা। ভারতের হাতে থাকা প্রায় ১২ লক্ষের বিশাল সেনাবাহিনীর হাতে বিধ্বংসী এবং অত্যাধুনিক অস্ত্রশস্ত্রের কমতি নেই। প্রযুক্তিগত দিক থেকেও ভারতীয় বাহিনী পাকিস্তানের চেয়ে অনেক এগিয়ে।

- Advertisement -

indian-army

প্রতিরক্ষা এবং বিদেশ মন্ত্রক সূত্রের খবর, ভারতের তরফে সামরিক প্রস্তুতি কতটা, তা বুঝিয়ে দেওয়ার জন্যই পাক সীমান্তের খুব কাছে এই মহড়ার আয়োজন হয়েছে। পাকিস্তান এবং চিন হাত মিলিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে জোট বাঁধার যে বার্তা আন্তর্জাতিক মহলকে দিতে শুরু করেছে, তার মোকাবিলায় যে ভারত সব রকম ভাবে তৈরি, সেই বার্তাই দেওয়া হচ্ছে।

air-force

২০০১ সালে সংসদে জঙ্গি হামলার পর ভারত পাকিস্তান আক্রমণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। ‘অপারেশন পরাক্রম’ নামের সেই অভিযানে বাহিনী এবং প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম সীমান্তে পাঠাতে এক মাস সময় লেগে যায়। সেই অপারেশন পরাক্রম থেকে শিক্ষা নিয়ে বাহিনী এবং সমর সরঞ্জাম দ্রুত কোথাও পাঠানো এবং খুব অল্প সময়ে আক্রমণের সক্ষমতা বাড়ানোর উপর জোর দেয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। সেই সক্ষমতারই প্রদর্শনী এখন চলছে থর মরুভূমিতে।

army

tank-i

satrujitarmt-tank-final

Advertisement
---