মোদীর জমানায় দেশের ঋণ ৫০ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৮২ লক্ষ কোটি

নয়াদিল্লি: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আমলে দেশের ঋণ বেড়েছে একধাক্কায় ৪৯ শতাংশ। গত সাড়ে চার বছরে ঋণ বেড়ে ৮২ লক্ষ কোটি টাকা হয়েছে বলে রিপোর্টে জানা গিয়েছে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের ঋণ সংক্রান্ত ‘স্টেটাস পেপার’-এর অষ্টম সংস্করণ থেকে এই তথ্য উঠে এসেছে।

২০১৮-র সেপ্টেম্বরে অর্থমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ঋণের পরিমাণ ৮২ লক্ষ, ০৩ হাজার ২৫৩ কোটি টাকা। ২০১৪ সালের জুন মাসে অর্থাৎ ইউপিএ জমানার শেষ কোয়ার্টারে এই ঋণের পরিমাণ ছিল ৫৪ লক্ষ ৯০ হাজার ৭৬৩ কোটি টাকা। সুতরাং, ঋণ বেড়েছে অনেকটাই।

জানা গিয়েছে, সরকারের ঋণ এই পরিমাণ বৃদ্ধির মূল কারণ পাবলিক সেক্টরের ঋণ বৃদ্ধি। গত চার বছরে পাবলিক সেক্টরে ঋণের পরিমাণ বেড়েছে ৫১.৭ শতাংশ। পাবলিক সেক্টরে ঋণের পরিমাণ ৪৮ লক্ষ কোটি টাকা থেকে বেড়ে হয়েছে ৭৩ লক্ষ কোটি টাকা। আভ্যন্তরীণ ঋণের পরিমাণ বেড়েছে ৫৪ গুণ।

সূত্রের খবর, সরকার চাইছে ঘাটতি মেটানোর জন্য সরাসরি খোলা বাজার থেকে টাকা তুলতে। সেজন্য উদ্যোগও নেওয়া হয়েছে। তবে, এই ঘাটতিকে সরাসরি ঋণ বলতে রাজি নয় সরকার।

এদিকে, সরকারের আশঙ্কা বাড়াচ্ছে রাজস্ব ঘাটতি। রাজস্ব ঘাটতিও প্রত্যাশার তুলনায় অনেকটাই বেড়েছে গত এক বছরে। ২০১৮ সালের নভেম্বর পর্যন্ত রাজস্ব ঘাটতি ছিল ৭.১৭ লক্ষ কোটি টাকা। গত বছরের মোট রাজস্ব ঘাটতির পূর্বাভাস ছিল ৬.২৪ লক্ষ কোটি টাকা। ২ মাস বাকি থাকতেই সেই লক্ষ্যমাত্রা পেরিয়ে গিয়েছে সরকার।

---- -----