লুকিয়ে থাকা শত্রুদের চিহ্নিত করতে সেনাবাহিনীতে নয়া প্রযুক্তি

নয়াদিল্লি: পণবন্দি করে যদি হামলা চালায় শত্রুপক্ষ, সেই পরিস্থিতিতে লড়াই করার জন্য ভারতের প্রতিরক্ষায় আসছে নয়া প্রযুক্তি। ডিআরডিও এমন একটি র‍্যাডার নিয়ে আসছে যাতে দেওয়ালের ওপারে থাকা শত্রুকেও চিহ্নিত করা সম্ভব হয়।

 

এই ‘ব্যারিয়ার ইমেজিং র‍্যাডার’-এর নাম দেওয়া হচ্ছে ‘দিব্যচক্ষু’। বেঙ্গালুরুতে এই প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণা চালানো হচ্ছে। এক গবেষক জানিয়েছেন, দেওয়ালের ২০ মিটার দুরে থাকা কোনও জিনিসের স্পষ্ট ছবিও ধরা পড়বে এই র‍্যাডারে।radar এর মাধ্যমে রিয়েল টাইম থার্মাল ইমেজ পাওয়া যাবে, যা থেকে দেওয়ালের ওপারে কতজন রয়েছে, তারা কোনদিকে যাচ্ছে না যাচ্ছে সবটাই ধরা পড়বে। এইভাবে পণবন্দি সাধারণ মানুষের থেকে আলাদা করা যাবে জঙ্গিদের।

- Advertisement -

 

২০০৮-এর মুম্বই হামলার সময় তাজ ও ওবেরয়ের বিভিন্ন জায়গায় যেভাবে জঙ্গিরা লুকিয়ে ছিল তাতে তাদের চিহ্নিত করা মুস্কিল হয়ে গিয়েছিল। তার জন্যই এই বিশেষ প্রযুক্তির চিন্তা ভাবনা মাথায় আসে। পঞ্জাবের গুরুদাসপুরের যেভাবে দীনানগর থানায় ঢুকে গিয়েছিল জঙ্গিরা, সেইরকম পরিস্থিতিতেও এই ডিভাইস কার্যকর হবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। কার্যকর হত পাঠানকোটের ক্ষেত্রেও।

 

২০১০ থেকে এই প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণা চালানো হচ্ছে। চলতি বছরের শেষে এই প্রজেক্ট শেষ হবে বলে অনুমান করা হচ্ছে। আর্মি, বিএসএফ ও প্যারামিলিটারি ফোর্স এই প্রযুক্তি ব্যবহার করবে বলে আশা করছেন গবেষকরা।

 

ভারতীয় সেনাবাহিনীর কাছে বর্তমানে এই ধরনের কোনও যন্ত্র নেই। এই যন্ত্র তৈরির খরচও কম বলেই জানা যাচ্ছে। ডিআরডিও-র হিসেব অনুযায়ী এই ডিভাইসের দাম হবে ৩৫ লক্ষ। আন্তর্জাতিক বাজারে এই ধরনের ডিভাইসের দাম ২ কোটি টাকা। এই ডিভাইসগুলি ৬-৭ কেজি ওজন হয়। ভবিষ্যতে এইও ওজন কমে যাবে বলেও জানিয়েছেন গবেষকরা।

সেনাবাহিনী সংক্রান্ত আরও খবর পড়তে ক্লিক করুন নিচের লিংকে:

 

Advertisement
---