ভারত-পাক আলোচনা ব্যাহত, দায়ী পাঠানকোট হামলা

ইসলামাবাদ: পাঠানকোট হামলার জন্যই ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক বৈঠক পিছিয়ে গেল। পাঠানকোট হামলার তিন সপ্তাহ পর এমনটাই উপলব্ধি করলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। কেননা আগামী মাসেও ভারত-পাক বিদেশ সচিব পর্যায়ের বৈঠকের সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন পাকিস্তানের হাই-কমিশনার। তাই শনিবার ভারত-পাক সম্পর্ক নিয়ে নিজের উপলব্ধির কথা প্রকাশ করে নওয়াজ শরিফ বলেন, “ভারতের সঙ্গে আলোচনার অগ্রগতি হচ্ছিল, কিন্তু পাঠানকোট হামলার জন্য এই আলোচনা প্রক্রিয়া ব্যহত হয়েছে।’’

পাক প্রধানমন্ত্রীর উপলব্ধি যে খুব একটা ভুল নয়, তা ভারতের শীর্ষ নেতৃত্বের আচরণেই স্পষ্ট। পাঠানকোট হামলার পিছনে পাক জঙ্গি সংগঠন জঈশ-ই-মহম্মদের হাত রয়েছে দাবি জানিয়ে পাকিস্তানকে তথ্য-প্রমাণও দেয় ভারত। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীও পাঠানকোট হামলার অপরাধীদের অবিলম্বে শাস্তির আশ্বাস দেন। কিন্তু তারপর তিন সপ্তাহ পেরিয়ে গিয়েছে। পাঠানকোট তদন্তে যৌথ কমিটি গড়েই ক্ষান্ত হয়েছে পাক সরকার। এখনও পর্যন্ত দোষীরা শাস্তি পায়নি। তবে পাঠানকোটের হামলাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়া পর্যন্ত ভারত পাকিস্তানের সঙ্গে কোনও আলোচনায় বসবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে নয়াদিল্লি। এরপর তদন্তের জন্য পাকিস্তান ভারতের কাছে পাঠানকোটের হামলাকারীদের বিষয়ে তথ্য-প্রমাণ চায়। ভারতও জঙ্গিদের ফিঙ্গার প্রিন্ট সহ বহুবিধ প্রমাণ পাকিস্তানের হাতে তুলে দেয়। কিন্তু তারপরেও পাক সরকার জঈশ-ই-মহম্মদের বিরুদ্ধে কোনও কড়া পদক্ষেপ করেনি। যদিও পাক হাই-কমিশনার জানান, উপযুক্ত তথ্য-প্রমাণ পেলেই অপরাধীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করবে পাকিস্তান। কিন্তু ভারত পাঠানকোট হামলার বিষয়ে যথাসম্ভব তথ্য-প্রমাণ পাকিস্তানকে দিয়েছে। ফলে আর কত প্রমাণ পেলে পাকিস্তান মাসুদ আজহার বা তার সংগঠনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে, তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।

অন্যদিকে, এই তদন্ত প্রক্রিয়ার গেরোয় এখনই ভারত-পাক বিদেশ সচিব পর্যায়ের বৈঠক হচ্ছে না। চলতি মাসে ভারত-পাক বিদেশ সচিব পর্যায়ের বৈঠক আগেই বাতিল হয়েছিল। তারপর ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম সপ্তাহে এই বৈঠক হওয়ার কথা শোনা যায়। কিন্তু সেই খবর ‘ভুল’ বলে এদিন জানালেন পাক হাই-কমিশনার। তিনি বলেন, “ফেব্রুয়ারির প্রথম পনের দিনের মধ্যে ভারত-পাক বিদেশ সচিব পর্যায়ের বৈঠক হওয়ার খবর ভুল।’’ ভারতই বৈঠকে বসতে চাইছে না এবং এভাবে বৈঠক পিছোনোর কোনও কারণ দেখতে পাচ্ছেন না বলেও মন্তব্য করেন পাক হাই-কমিশনার।

- Advertisement -

 

Advertisement ---
-----