মমতার পাশে থাকার আশ্বাস শিল্পপতিদের

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : একেবারে হিসেব নিকেশ করে এবারের বিশ্ব বঙ্গ শিল্প সম্মেলন থেকে কত লগ্নির প্রস্তাব এল তা শুক্রবার ছবিটা স্পষ্ট হবে ৷ তবে তার আগে বৃহস্পতিবার এই সম্মেলনের প্রথম দিনে বাংলায় মুখ্যমন্ত্রীর পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছে শিল্পমহল৷

আর কিছু দিন বাদে লোকসভা নির্বাচন ফলে শিল্পমহল এই সময় সাধারণত ধীরে চলো নীতি নয় কারণ তারাও বিনিয়োগের আগে বদলের সম্ভাবনার জল মাপেন৷ তাই সাধারণত এই লগ্নে বড় লগ্নির কথা শিল্পপতিদের মুখে শোনা যায় না৷ তাহলেও সম্মেলনের উদ্বোধনী মঞ্চেও বড় অংকের বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি শোনা গিয়েছে৷ তা ছাড়া এ রাজ্যে নিজেদের লগ্নির ধারাবাহিকতা বজায় রাখার প্রতিশ্রুতিও দিতে দেখা গিয়েছে শিল্পপতিদের৷

এ রাজ্যকে লগ্নির গন্তব্য হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তুলে ধরতে যথারীতি দাবি করেছেন, রাজ্যের ভাবমূর্তি বদলে গিয়েছে কারণ বন্‌ধ, শ্রমদিবস নষ্ট ইত্যাদি এখন অতীত। আগের তুলনায় যে পশ্চিমবঙ্গ এখন অন্য রকম জায়গা সেই বার্তা দিতে চেয়েছেন৷

জবাবে শিল্পপতিদের অনেকেই এখানে আস্থা রেখে ধারাবাহিক ভাবে লগ্নি করেছেন বলে জানিয়েছেন। রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ-এর কর্তা মুকেশ অম্বানী যেমন আরও ১০ হাজার কোটি টাকার কাজ চলার কথা জানিয়েছেন, তেমনই আবার আদানি গোষ্ঠীর করণ আদানি বন্দর ও লজিস্টিকস পার্ক প্রকল্প করার কথা বলেছেন।

হলদিয়া পেট্রোকেমের পূর্ণেন্দু চট্টোপাধ্যায় অনুসারী শিল্পের কারখানা চালু করছেন৷ অসুবিধার জেরে সজ্জন জিন্দালরা ইস্পাত কারখানা না হলেও সিমেন্ট কারখানা-সহ নানা প্রকল্প করেছেন বলে জানিয়েছেন৷ রাজ্যের প্রতি তাঁর আস্থা অটুটের কথা ব্যক্ত করেছেন শিল্পপতি সঞ্জীব গোয়েঙ্কা। তাছাড়া জার্মানি, ইতালি ও কোরিয়ার প্রতিনিধিদলের সঙ্গে তিনটি মউ হস্তান্তরও হয়েছে।

---- -----