‘দৃশ্যম’ সিনেমার কায়দায় খুন, বিজেপি নেতা সহ গ্রেফতার পাঁচ

ইন্ডোর: চতুর্থ ফেল বিজয় সালগাওকরের সিনেমার নেশা ছিল মারাত্মক৷ কিন্তু একটি খুনের ঘটনা বদলে দেয় তাঁর জীবন৷ সেই অঘটনের পর পরিবারকে বাঁচাতে রাতারাতি ক্লাস ফোর ফেল বিজয় বুদ্ধির খেলা খেলে আইজিকে পর্যন্ত প্যাঁচে ফেলে দেয়৷ আর সেই বুদ্ধির জোগান দেয় সিনেমাই৷ রিলের এই কাহিনীকে বাস্তবের রূপ দিতে গিয়েছিল জগদীশ কারোটিয়া ওরফে কাল্লু পহলওয়ান৷ কিন্তু রিল আর রিয়েল লাইফের মধ্যে ফারাকটা ভুলে গিয়েছিল সে৷ তাই খুন করেও পার পেল না জগদীশ৷ পুলিশের হাতে ধরা পড়তেই হলো৷

দু’বছর আগের এক খুনের ঘটনায় বিজেপি নেতা জগদীশ সহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে ইন্ডোর পুলিশ৷ ধৃতরা হল অজয়(৩৬), বিজয়(৩৮), বিনয়(৩১) এবং তাদের সহযোগী নীলেশ কাশ্যপ(২৮)৷ এদের মধ্যে প্রথম তিনজন জগদীশের ছেলে৷ অভিযোগ, দু’বছর আগে ট্যুইঙ্কল দাগরে (২২) নামে এক তরুণীকে খুন করে এই পাঁচ জন৷

পুলিশ জানিয়েছে, ট্যুইঙ্কলের সঙ্গে জগদীশের সম্পর্ক ছিল৷ এই সম্পর্ক থেকেই সমস্যার সূত্রপাত৷ জগদীশের পরিবার ট্যুইঙ্কলকে মেনে নিতে পারেনি৷ তাই তাঁকে খুন করার ষড়যন্ত্র করে৷ তাতে সায় ছিল জগদীশেরও৷ এরপর ২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে গলা টিপে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয় ট্যুইঙ্কলকে৷ পরে তাঁর শরীর পুড়িয়ে দেওয়া হয়৷

- Advertisement -

ইন্ডোরের ডিআইজি হরিনারায়ণচারী মিশ্র জানান, খুন করার আগে সকলে মিলে দৃশ্যম সিনেমাটি দেখে৷ সিনেমাটি দেখে উদ্বুদ্ধ হয়ে মৃতদেহের জায়গায় একটি মরা কুকুরের দেহ রেখে দেয়৷ তদন্তকে ভুল পথে চালিত করতে এটা করা হয়েছিল৷ যথারীতি পুলিশও মাটি খুঁড়ে কুকুরের দেহ উদ্ধার করে৷

অপরাধীরা যদি যায় ডালে ডালে তাহলে পুলিশও চলে পাতায় পাতায়৷ খুনের রহস্য উদঘাটনে ইন্ডোর পুলিশ জগদীশ ও তাঁর দুই ছেলের উপর ব্রেন ইলেকট্রিক্যাল ওসিলিয়েশন সিগনেচার টেস্ট করায়৷ তখনই ধরা পড়ে যান সকলে৷ ট্যুইঙ্কলের মৃতদেহ যেখানে পুড়িয়ে ফেলা হয় সেখান থেকে পুলিশ একটি ব্রেসলেট ও কিছু অলঙ্কার উদ্ধার করেছে৷