হাসপাতালে অশান্তি রুখতে তায়েকোন্দো, যোগে উঠছে প্রশ্ন

বিশ্বজিৎ ঘোষ, কলকাতা: হাসপাতালে অশান্তি রুখে দেওয়ার লক্ষ্যে, বিশেষ করে ভাবী চিকিৎসকদের জন্য তায়েকোন্দো প্রশিক্ষণের কথা বলেছে রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর৷ অথচ, তাঁদেরই জন্য যোগে উঠছে প্রশ্ন৷

চিকিৎসায় অবহেলার অভিযোগের জেরে রোগীর ক্ষুব্ধ ‘পরিজন’দের কাছে কর্তব্যরত চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মীদের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা যেভাবে গত বছর থেকে বেড়ে চলেছে, তার জন্য সরকারি এবং বেসরকারি চিকিৎসকদের বিভিন্ন সংগঠন উদ্বেগ-আতঙ্কে রয়েছে বলে জানানো হয়েছে৷ এই ধরনের বিভিন্ন ঘটনায় হাসপাতালে ভাঙচুরও হয়েছে৷ তবে, শুধুমাত্র সরকারি হাসপাতাল এবং মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল নয়৷ বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোমকেও এই ধরনের ঘটনার সম্মুখীন হতে হচ্ছে৷

কিন্তু, এই ধরনের পরিস্থিতির মধ্যেও চিকিৎসকরা যাতে কর্তব্যে অবিচল থাকতে পারেন, কার্যত তার জন্য তায়েকোন্দো প্রশিক্ষণ নেওয়ার কথা বলেছে রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর৷ গত ফেব্রুয়ারি মাসে এই বিষয়ে স্বাস্থ্য দফতর নির্দেশও জারি করেছে৷ তায়েকোন্দো প্রশিক্ষণের বিষয়ে ওই সময় রাজ্যের স্বাস্থ্য-শিক্ষা অধিকর্তা দেবাশিস ভট্টাচার্য এমন বলেছিলেন, ‘‘প্রাথমিক স্তরে মেডিক্যাল স্টুডেন্ট, ইন্টার্ন, হাউস স্টাফদের জন্য ব্যবস্থা করা হচ্ছে৷’’ একই সঙ্গে তিনি বলেছিলেন, ‘‘এই মার্শাল আর্ট স্ট্রেস কমিয়ে রাখার জন্য সহায়তা করে৷’’

- Advertisement -

যদিও, তায়েকোন্দো প্রশিক্ষণের জন্য স্বাস্থ্য দফতরের ওই নির্দেশকে কেন্দ্র করে বিতর্কও কম দেখা দেয়নি৷ হাসপাতালে অশান্তি রুখে দেওয়ার ‘দাওয়াই’ হিসাবে তখন যেভাবে বিশেষ করে ভাবী চিকিৎসকদের জন্য তায়েকোন্দো প্রশিক্ষণের কথা বলা হয়েছিল, তার জেরে চিকিৎসকদের বিভিন্ন মহল প্রশ্নও তুলেছিল৷ রাজ্যের সরকারি চিকিৎসক এবং জুনিয়র ডাক্তারদের একাংশের তরফে এমনও অভিযোগ তোলা হয়েছিল, এ ভাবে মার্শাল আর্ট শেখানোর ব্যবস্থার মাধ্যমে হাসপাতালে অশান্তির পিছনে থাকা মূল কারণ আড়াল করছে স্বাস্থ্য দফতর৷

রাজ্যের স্বাস্থ্য-শিক্ষা অধিকর্তা তখন অবশ্য বলেছিলেন, ‘‘এমন অভিযোগ এবং ভাবনা সঠিক নয়৷ আমাদের দেখেই দিল্লির এইমসের ডিরেক্টর সেখানে তায়েকোন্দো প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করছেন৷’’ এ দিকে, স্বাস্থ্য সুরক্ষায় যোগের বিষয়টিও গুরুত্বপূর্ণ৷ স্বাভাবিক কারণেই, মানসিকভাবে চাপমুক্ত থাকার জন্য যোগের ভূমিকা রয়েছে৷ তা হলে, মেডিক্যাল পড়ুয়াদের জন্য আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে কোনও পরিকল্পনা রয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের? এই বিষয়ে রাজ্যের স্বাস্থ্য-শিক্ষা অধিকর্তা দেবাশিস ভট্টাচার্যর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘‘যোগের বিষয়টি আয়ুষ বিভাগ দেখছে৷’’

আন্তর্জাতিক যোগ দিবসে মেডিক্যাল পড়ুয়াদের জন্য কোনও আর্জি…৷ তিনি বলেন, ‘‘যোগের উপকারিতার বিষয়ে নতুন করে কিছু আর বলার নেই৷ যে কোনও মানুষের পক্ষেই যোগ ভালো৷ তবে, প্রশিক্ষকের পরামর্শ অনুযায়ী যোগ অনুশীলন করা উচিত৷’’ শুধুমাত্র এমনও নয়৷ রাজ্যের স্বাস্থ্য-শিক্ষা অধিকর্তা জানিয়েছেন, মেডিক্যাল কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়ার নির্দেশ অনুযায়ী মেডিক্যাল পড়ুয়াদের জন্য যোগ অনুশীলনের ব্যবস্থা রয়েছে৷
লিঙ্ক:

Advertisement
-----