ফ্যাশনের ঝাঁপি নিয়ে রাজলক্ষ্মী…

কলকাতা: “ফ্যাশনের কোনও ট্রেন্ড হয়না, চাহিদা অনুযায়ী বদলায় ফ্যাশন” অন্তত এমনটাই মনে করেন ফ্যাশন ডিজাইনার রাজলক্ষ্মী শ্যাম৷ ট্যুরিজম ম্যানেজমেন্ট নিয়ে পড়াশোনা করেছিলেন একেবারে শুরুতে৷ তারপর ম্যানেজমেন্ট মাস্টারস অফ বিজনেস করতে নবজাতক কে রেখেই চলে যান অষ্ট্রেলিয়ায়৷ এরপরই ফ্যাশন ওয়ার্লডে আসা৷ জীবনের বেশ অনেকগুলো চড়াই উতরাই পেরিয়ে আজ তিনি একজন অন্যতম বিখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার, শুধু তাই নয় ডিজাইনারের পাশাপাশি তিনি একজন পিয়ানো শিল্পীও৷ উইক ডে-র ব্যস্ত শেডিউল থেকেই কিছুটা সময় বের করে কলকাতা ২৪x৭কে শোনালেন তার এই লড়াইয়ে এগিয়ে যাওয়ার কথা৷ শুনলেন প্রিয়াঙ্কা দত্ত

প্রশ্ন: সম্পূর্ন অন্য একটা ব্যাকগ্রাউন্ডে ফ্যাশন জগতে এলেন ঠিক কিভাবে?
রাজলক্ষ্মী: ফ্যামিলি ব্যাকগ্রাউন্ডটা একেবারেই অন্য৷ আমাদের টি গার্ডেন ছিল, সঙ্গে বেশ কয়েকটা রিয়েল এস্টেটও ছিল, সেখান থেকে সবার বিরুদ্ধে গিয়ে নিজের ইচ্ছেতে ফ্যাশন জগতে আসা টা আমার জন্য খুবই কঠিন ছিল৷ পাশাপাশি সাংসারিক জীবনেও ছিল অশান্তি৷ মেয়ে হওয়ার ১৩ দিনের মাথায় আমি বাবা মা-য়ের কাছে চলে আসি৷

4

প্রশ্ন:এবার একটু ফ্যাশন নিয়ে কথা বলা যাক, কি ধরণের ড্রেজ ডিজাইন করো তুমি?
রাজলক্ষ্মী: আমার মূলত দু-ধরণের রেঞ্জ রয়েছে একটা প্রিমিয়াম রেঞ্জ অন ব্রাইডাল৷ অন্যটা পার্টি অ্যান্ড ক্যাজুয়াল রেঞ্জ৷ যদিও খুব বেশি ক্যাজুয়াল নয়৷ টপস বানাই কিছু কিছু৷ আমি মেইনলি মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ করে তৈরি করি৷ যেমন ধরো বাটিক-এর সঙ্গে জরজেট বা জারদৌসির সঙ্গে সিফন কম্বাইন্ড করে ড্রেস ডিজাইন করে তৈরি করি৷ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই আমি আমার ক্লায়েন্টদের সঙ্গে শপিং-এও যাই আর ড্রেস মেটিরিয়াল কিনে আনি৷ ট্রেন্ড বদলাতেই থাকে, সেটাকে মাথায় রেখেই ফ্যাশনটা রপ্ত করতে হবে৷

প্রশ্ন: ছেলেদের ফ্যাশনে কানের দুল, নাক ছাবি নিয়ে তোমার কি মতামত?
রাজলক্ষ্মী: দেখ আমার মনে হয় মাসকুলিনিটি অ্যান্ড ফেমিনিটির মধ্যে অবশ্যই একটা পার্থক্য থাকা দরকার৷ এই ধরনের সাজপোষাক গুলো ম্যাগাজিন, সিনেমা টিভিতেই দেখতে ভাললাগে৷ আমার বর আমার চোখের সামনে নাকছাবি পরবে সেটা আমি একদম মেনে নিতে পারব না৷

2

প্রশ্ন: নিউ জেনারেশন ফ্যাশন নিয়ে কতটা সচেতন?

রাজলক্ষ্মী: আমার তো মনে হয় ওরা আমাদের থেকেও অনেক বেশি সচেতন৷ কম বাজেটেও কিভাবে ইন ফ্যাশন থাকা যায় ওরা জানে৷ উদাহরণ হিসাবে আমি আমার মেয়ের কথাই বলতে পারি৷ আমি ওর কলেজের বন্ধুদেরও দেখি৷ ওরা খুবই ক্যাজুয়াল থাকতে পছন্দ করে৷

প্রশ্ন: সাধারণত কি ধরণের ক্লায়েন্ট বেশি আসে ?
রাজলক্ষ্মী: আমার বন্ধুবান্ধব মিলিয়ে বেশির ভাগটাই বিদেশি ক্লায়েন্ট৷ কিছুক্ষেত্রে ওরাও মেটিরিয়াল নিয়ে আসে৷ আমি সেইভাবেই ডিজাইন করি৷5

প্রশ্ন: ব্রাইডাল ক্লায়েন্টদের ডিমান্ড নিয়ে যদি কিছু বল?
রাজলক্ষ্মী: ইদানিং দেখছি বিয়েবাড়িও এখন একটা থিম হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ একবার বিচ ব্রাইডাল ওয়্যারেরও ওর্ডারও পেয়েছি৷ আমি তো বেশ ঘাবড়েই গিয়েছিলাম যে বিয়েতে কিভাবে বিচ ওয়্যার হতে পারে৷ তখন লং স্কার্ট কে কিছুটা এবড়ো খেবড়ো করে কেটে, হাঁটুর ওপর তুলে, স্পাগেটি টপ ওড়না দিয়ে, বিচ ওয়্যারও বানিয়েছি৷

সবমিলিয়ে বেশ বোঝা গেল রাজলক্ষ্মীর ক্রেজ শুধু দেশেই নয়, রয়েছে বিদেশেও৷ রাজলক্ষ্মীর আগামী দিনের পথ চলার জন্য আমাদের তরফ থেকে রইল শুভেচ্ছা৷

Advertisement
---
-----