সদ্যপ্রয়াত কালিকাপ্রসাদের স্মৃতিচারণায় ময়ূখ-মৈনাক

কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্য প্রয়াত হয়েছেন। তাঁর চলে যাওয়া এক অপূরণীয় ক্ষতি।। বাংলা সঙ্গীত জগতে থেকে গেল তাঁর অনেক কাজ। বাকিও রয়ে গেল অনেক কিছু। সঙ্গীতশিল্পী ময়ূখ-মৈনাকের কথায় উঠে এল কালিকার স্মৃতিচারণ। কথা বললেন অরুণাভ রাহারায়

প্রশ্ন: ‘অযান্ত্রিক’ অ্যালবাম ও কালিকা সম্পর্কে কিছু বলুন

ময়ূখ-মৈনাক: কলিকার চলে যাওয়া ভাবতেই পারছি না। এই মুহূর্তে কলকাতার বাইরে আছি বলে আরও অসহায় লাগছে। ওঁর সঙ্গে আমাদের অনেক কাজ। অনেকটা সময় আমরা একসঙ্গে পথ চলেছি। ‘অযান্ত্রিক’-এর কয়েকটা গান কালিকা লিখেছিল, গেয়েও ছিল বেশ কয়েকটা। কালিকার এই চলে যাওয়া শুনতে আমরা প্রস্তুত ছিলাম না।

- Advertisement -

প্রশ্ন: ‘মোকাম’ গানের দলের কথা কিছু বলুন

ময়ূখ-মৈনাক: বাউলরা যে-ঘরে সঙ্গীত সাধনা করে সেই ঘরকে ‘মোকাম’ বলা হয়। মোকাম নামটা দিয়েছিল কালিকা। আমরা সবাই যৌথ ভাবে মোকামে কাজ করেছি। ‘গানের শরীরে এঁকে রেখেছি তোমার নাম/ গানে গানে তোমারে দিলাম’ গানটা কালিকার লেখা।

প্রশ্ন: কালিকাপ্রসাদ তো পারিবারিক ভাবে সঙ্গীত পেয়েছিলেন

ময়ূখ-মৈনাক: হ্যাঁ। ওঁর কাকা অনন্ত ভট্টাচার্য বিশিষ্ট লোকসঙ্গীতশিল্পী ছিলেন। অনন্ত কাকুর সংগ্রহে অনেক লোকগানের ক্যাসেট ছিল। কালিকা উত্তরাধিকার সূত্রে তাই সেইসব পেয়েছিল। এবং সুন্দর ভাবে বহন করে যাচ্ছিল। কিন্তু এত তাড়াতাড়ি ওঁর চলে যাওয়ার কথা ছিল না। আরও অনেক কাজ বাকি রয়ে গেল। আমরা একজন ভালো শিল্পীকে হারালাম।

প্রশ্ন: কালিকাপ্রসাদ জন্মসূত্রে কলকাতার মানুষ নন। বাইরে থেকে এই শহরে এসেছিলেন…

ময়ূখ-মৈনাক: কালিকা শিলচরের মানুষ। আমরা আলিপুরদুয়ারের। কলকাতায় আমাদের আলাপ হয়, বন্ধুত্ব হয়। আমরা অনেক কাজ করেছি একসঙ্গে। দোহারের ডেমোতেও কাজ করার সময় আমরা দুই ভাই একসঙ্গে ছিলাম। এরপর রবীন্দ্র সঙ্গীতের একটা অ্যালবাম বেরোয়। সেখানে লোকগান ও রবীন্দ্র সঙ্গীতের সংলাপ ছিল। সেই কাজও আমরা সবাই মিলে অ্যারেঞ্জ করেছি। অনেক ভাবনা আদান প্রদান হয়েছে ওঁর সঙ্গে। চিন্তা বিনিময় হয়েছে। অনেক সময় ধরে আমরা একসঙ্গে আড্ডা দিয়েছি। সেই দিনগুলোর কথা খুবই মনে পড়ছে এখন।

প্রশ্ন: কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্য ময়ূখ-মৈনাকের বন্ধু ছিলেন। পরে বন্ধু বিচ্ছেদও হয়েছিল

ময়ূখ-মৈনাক: আসলে সেসব ব্যক্তিগত বিষয়। শিল্পের সঙ্গে এর কোনও সংযোগ নেই। সঙ্গীত নিয়ে, বিশেষত লোকগান নিয়ে কালিকার আরও কাজ করার ছিল। বড় অসময়ে চলে গেল।

 

Advertisement
---