বাঙাল বলে প্যাঁক খেতে হয়েছে: রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এনআরসি ইস্যুতে দেশজুড়ে বিতর্ক৷ এনআরসি নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের কড়া সমালোচনা করলেন বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত।

প্রদেশ কংগ্রেস দফতর ‘বিধানভবনে’ আয়োজিত এক সেমিনারে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে চড়া সুরে বলেন, ‘‘চল্লিশ লক্ষেরও বেশি মানুষকে বলা হচ্ছে দেশ থেকে বেরিয়ে যাও। কিন্তু তারা কোথায় যাবে কেউ বলছে না। তাড়িয়ে দিলেই কি সব দায়িত্ব পালন হয়ে যায়?’’

এনআরসি বিতর্কের মাঝেই এদিন বিধানভবনে ‘অসম নৈরাজ্য’ শীর্ষক একটি আলোচনাচক্রের আয়োজন করেন প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র। সেই সভায় বক্তা ছিলেন রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত। এনআরসি নিয়ে মোদী সরকারের সমালোচনা করতে গিয়ে এদিন কিছুটা আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন বামপন্থী এই নাট্যব্যক্তিত্ব। উদ্বাস্তুদের কঠিন জীবনসংগ্রামের কথা বলতে গিয়ে রুদ্রপ্রসাদ বলেন, ‘‘ওপার বাংলার মানুষ বলে অনেকেই মশকরা করতে ছাড়েন না। আমাকেও পাড়ায় বাঙাল বলে প্যাঁক দিত।’’

রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত ছাড়াও এদিনের আলোচনা সভার অন্যতম বক্তা ছিলেন বিশিষ্ট্য শিক্ষাবিদ আনন্দদেব মুখোপাধ্যায়। এনআরসি ইস্যুতে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে তিনিও ক্ষোভ উগড়ে দেন। আনন্দদেববাবু বলেন, ‘‘এরা দেশের স্বাধীনতার ইতিহাস জানে না। তাই চল্লিশ লক্ষ মানুষকে চলে যেতে বলছে। অসমে কোনওদিন ধর্মীয় ভেদাভেদ ছিল না। কৌশলে এই সরকার সেটা করার চেষ্টা করছে।’’

সভার মূল আয়োজক প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র বলেন, ‘‘বিজেপি সরকার অসমে রাজনীতি করছে।’’ এ রাজ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারও বহু সময় সংকীর্ণ রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ তৃণমূলের এই প্রাক্তন সাংসদের।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

Advertisement
----
-----