সেন্ট পিটার্সবার্গ: বিশ্বকাপের তৃতীয় ম্যাচে ইরানের কাছে ১-০ পরাজয় স্বীকার করল মরক্কো৷ ম্যাচের ৯০ মিনিট গোলশূন্য থাকার পর অতিরিক্ত সময়ের চতুর্থ মিনিটে ফরোয়ার্ড আজিজি বোয়াদুজের ভুলে এগিয়ে যায় ইরান৷ ইরানের এহসান হাজিজি সাফির ফ্রি-কিক থেকে আত্মঘাতী গোল করেন মরক্কোর ফরোয়ার্ড বোয়াদুজ৷

২০ বছর পর বিশ্বকাপের মঞ্চে ফিরেছে মরক্কো৷ শুক্রবার ম্যাচের শুরু থেকেই উজ্জীবিত ছিল মরক্কোবাহিনী৷ একাধিকবার ইরানের রক্ষণ ভেদ করে গোলের কাছাকাছি চলে আসছিলেন মরক্কোর ফুটবলাররা৷ ম্যাচের চতুর্থ মিনিটে এগিয়ে যেতে পারত মরক্কো কিন্তু হাকিম জিয়াশের শট গোলপোস্ট খুঁজে নিতে ব্যর্থ থাকে৷ চার মিনিট পর আরও একবার বল বিপক্ষের জালে জড়িয়ে দেওয়ার সুযোগ পান মরক্কোর আয়ুব এল কাবি৷ কিন্তু এবারেও ভাগ্য সঙ্গী হয়নি হার্ভ রেনাডের দলের৷

Advertisement

ইরানের হয়ে প্রথম সুযোগ তৈরি করেন সরদার আজমাউন৷ কিন্তু ইরানের স্ট্রাইকারের প্রচেষ্টা রুখে দেন মরক্কোর গোলকিপার৷ গোলশূন্য অবস্থায় শেষ হয় ম্যাচের প্রথমার্ধ৷দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে ম্যাচের উষ্ণতা কমতে থাকে৷ দু’দলের খেলোয়াড়রা যেন কিছুটা ঝিমিয়ে পড়ে৷ মাঝখানে কয়েকবার ইরানের ফরোয়ার্ডরা চেষ্টা করলেও সে চেষ্টা ফলপ্রসূ হয়নি৷ ৮০ মিনিটে আরও একবার বল নিয়ে ইরানের ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন জিয়াশ৷ এবার তাঁর শট গোলপোস্ট লক্ষ্য করে এগোলে ইরানের গোলরক্ষক বল এবং জালের মাঝে এসে দাঁড়ান৷ গোলশূন্য থেকে যায় ম্যাচের ৯০ মিনিট৷

কিন্তু ইরানের জন্য উপহার অপেক্ষা করেছিল অতিরিক্ত সময়েই৷ যোগ করা সময়েরও শেষের মুহূর্তে ইরানের এহসান সাফির ফ্রি-কিক শট রক্ষা করতে গিয়ে ভুল হেডে আত্মঘাতী গোল করে বসেন মরক্কোর ফরোয়ার্ড আজিজি বোয়াদুজ৷ বিপক্ষ ফরোয়ার্ডের ভুলে বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই জয়ের স্বাদ পায় ইরান৷ আত্মঘাতী গোল করার পর কষ্টে মাথায় হাত দিয়ে মাঠে বসে পড়েন আজিজ৷

----
--