সোচি: গ্রুপ পর্যায়ে মিশরকে হারানো থেকে শেষ ষোলোর লড়াইয়ে স্পেনকে ছিটকে দেওয়ার মতো সমস্ত রকম অঘটন ঘটিয়েই বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল পৌঁছেছিল রাশিয়া৷ একেবারে বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হওয়া তালিকায় না থাকা দলের থেকে হঠাৎ করে বিশ্বকাপ ফাইনালে থাকতে পারে এমন দলের তালিকায় নাম তুলে ফেলে পুতিনের দেশ৷

কোয়ার্টার ফাইনালে ক্রোয়েশিয়ার শেষ পেনাল্টি শট নেওয়া পর্যন্ত নিজেদের লড়াইয়ে রেখেছিল রাশিয়া৷ টাইব্রেকারে ক্রোয়েশিয়ার কাছে ৩-৪ পরাজিত হয় বিশ্বকাপের আয়োজক দেশটি৷ পাঁচটি পেনাল্টির মধ্যে দুটি মিস করে রাশিয়া৷

গোল থেকে অনেকটা দূরে বল মারেন রাশিয়ান মারিয়ো ফার্নান্ডেজ৷ কিন্তু আবার এই মারিয়ো ফার্নান্ডেজের গোলেই টাইব্রেকার অবধি পৌঁছতে পেরেছিল রাশিয়া৷ নাহলে অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে ভিদার গোলেই ২-১ ম্যাচ পকেটে পুরে নিয়েছিল ক্রোয়েশিয়া৷ এই রাশিয়ান ডিফেন্ডার ফার্নান্ডেজ আদপে ব্রাজিল বংশদ্ভূত৷ তাই রাশিয়ার কোয়ার্টার ফাইনাল হারের পেছনে জুড়ে থাকছে ব্রাজিলের নামও৷

শনিবারে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচটিতে প্রথম গোলমুখ খোলেন রাশিয়ার ফুটবলাররাই৷ ৩১ মিনিটে অর্টেম জিউবার পাশ থেকে শেরিশেভের শট ক্রোয়েশিয়ার জাল খুঁজে নেয়৷ তবে বেশিক্ষণ গোল হজম করে শান্ত থাকেনি ক্রোয়েশিয়া৷ প্রথমার্ধেই ক্রোয়েশিয়াকে সমতা ফিরে পেতে সাহায্য করেন ক্রমারিক৷ ৩৯ মিনিটে মান্ডজুকিকের বাড়িয়ে দেওয়া বল থেকে গোল করেন ক্রমারিক৷ ১-১ শেষে হয় ম্যাচের প্রথমার্ধ৷ দ্বিতীয়ার্ধে দু’দলই দারুণ সুযোগ পেলেও গোল করতে পারেননি রাশিয়া এবং ক্রোয়েশিয়ার ফুটবলাররা৷ ৯০ মিনিট খেলা হওয়ার পর প্রথমে যোগ করা পাঁচ মিনিটেও গোলের দেখা পায়নি বিশ্বকাপ কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি দু’টি দল৷

অতিরিক্ত পাঁচ মিনিট সময়ের পর আরও ৩০ মিনিট ম্যাচ চালানোর সিদ্ধান্ত নেন রেফারি৷ এই অতিরিক্ত সময়ের শুরুতেই মড্রিকের পাশ থেকে গোল করেন ক্রোয়েশিয়ান ফুটবলার ভিদা৷ ২-১ এগিয়ে যায় ক্রোয়েশিয়া৷ ম্যাচটির গতি যখন ক্রোয়েশিয়ার দিকে মোড় নিচ্ছে ঠিক তখনি ১১৫ মিনিটের মাথায় অ্যালেন জাগোয়েভের ফ্রিকিক থেকে হেডে বল ক্রোয়েশিয়ার জালে জড়িয়ে দিয়ে সমতা ফেরান মারিয়ো ফার্নান্ডেজ৷ শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে ৩-৪ ব্যবধানে ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালে পৌঁছেছে ক্রোয়েশিয়া৷

----
--