সেনা অপারেশনে নিকেশ বাগদাদির ছেলে

দামাস্কাস: বাগদাদির পর এবার তার ছেলে৷ আইসিস নেতা আবু বকর আল বাগদাদির মৃত্যুর খবর বহুবার প্রকাশিত হয়েছে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে৷ যদিও তার সত্যতা যাচাই করা যায়নি৷ এবার বাগদাদির ছেলের মৃত্যুর খবর মিলল৷ সিরিয়ার স্থানীয় সংবাদমাধ্যম এই খবরের সত্যতা স্বীকার করে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে৷ সিরিয়ার হোমস শহরে তার মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷

মঙ্গলবার এই রিপোর্ট পেশ করেছে সংবাদমাধ্যমটি৷ বলা হয়েছে হুদায়েফা অল বদরি নামের ওই জঙ্গিকে মেরে ফেলা হয়েছে৷ তার বাবার নাম আবু বকর আল বাগদাদি৷ আরও বলা হয়েছে হোমসের তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রে অপারেশন চালানোর সময়ে রাশিয়ার সেনা বাহিনীর ওপর আক্রমণ চালানো হয়৷ , সেই অপারেশনেই নিহত হয় বদরি৷

এর আগে, আইএস প্রধান আবু বকর আল-বাগদাদি বেঁচে আছে বলে খবর প্রকাশিত হয়েছিল৷ এমনই অনুমান করেছিলেন মার্কিন সেনার শীর্ষ কমান্ডার৷ রাশিয়ার দাবি অনুযায়ী, আগের হামলাতে হয়তো বাগদাদি খতম হয়েছে৷ ইরাক-সিরিয়াতে আইএসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেতৃত্ব প্রদানকারী মার্কিন সেনার লেফট্যানেন্ট জেনারেল স্টিফেন টাউসেন্ড বলেন, ‘আমি এখন মনে করি যে সে বেঁচে আছে কি না? হ্যাঁ…’৷ উপযুক্ত প্রমাণের অভাবেই যে তাঁর মনে এমন সংশয় তৈরি হয়েছে তাও জানান তিনি৷

- Advertisement -

আল বাগদাদির খতম হওয়ার যে কথা বলা হচ্ছিল, তা এক গুজব বলেই মত তাঁর৷ তিনি জানান, গোপন সূত্র থেকে এমন কিছু সংকেত পাওয়া গিয়েছে যার থেকে মনে হচ্ছে বাগদাদি বেঁচে রয়েছে৷ যদিও সূত্রের বিষয়ে বিশেষ কিছু বলেননি টাউসেন্ড৷

রুশ আধিকারিকেরা গত জুন মাসে বলেছিলেন, এক মাস আগেই রাকা এবং সিরিয়ার বাইরের এলাকায় রাশিয়া বিমান হামলায় বাগদাদি খতম হয়৷

বৃহস্পতিবার পেন্টাগন তার বাগদাদের প্রধান কার্য্যালয়ে সাংবাদিকদের জানায়, টাউসেন্ড জানিয়েছেন আল বাগদাদিকে খোঁজা হচ্ছে৷ যদি এমনটা সম্ভব হয় তাহলে তাকে ধরার পরিবর্তে মেরে ফেলাও হতে পারে৷

এমনই তথ্য তুলে ধরলেন মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস৷ সূত্রের খবর, ম্যাটিস জানিয়েছেন, তাঁর মতে বাগদাদি বেঁচে রয়েছে৷ তিনি আরও জানান, আমেরিকা বাগদাদিকে মেরেছে একথা জানতে পারলেই তিনি বাগদাদির মৃত্যুর খবর মেনে নেবেন৷ এই আইএসআইএস প্রধানের খোঁজও চলছে বলে জানান ম্যাটিস৷ ম্যাটিস জানান, রাশিয়ার সেনা গত মাসে দাবি করেছিল সিরিয়ার রাক্কার কাছে গত ২৮মে বাগদাদির এক বৈঠকে তার ওপর হামলা চালানো হয়, আর তাতেই সম্ভবত সে মারা গিয়েছে৷

Advertisement ---
---
-----