স্যালুট! দু:স্থ যুবকদের পুলিশের ট্রেনিং দিচ্ছেন এই আইপিএস অফিসার

শ্রীনগর: জম্মু কাশ্মীর পুলিশের বিভিন্ন বিভাগে সাব ইন্সপেক্টর পদের পরীক্ষায় বসেছিলেন ২১৮১ জন৷ তার মধ্যে ৩৮ জনের নাম সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছে৷ এর পিছনে রয়েছে তাদের প্রশিক্ষকের হাত৷
সন্দীপ চৌধুরী নামে এক তরুণ আইপিএস অফিসার এই ৩৮ জন পরীক্ষার্থীকে ট্রেনিং দিয়েছিলেন৷ লিখিত পরীক্ষায় এঁরা প্রত্যেকে সফল ভাবে উত্তীর্ণ হয়েছে৷

শুধু এই ৩৮ জনই নয়, সন্দীপ চৌধুরী এভাবেই পড়ান বহু মেধাবী অথচ দু:স্থ ছাত্র ছাত্রীকে৷ তাদের তৈরি করেন কম্পিটিটিভ পরীক্ষার জন্য৷ তার সেই পরিশ্রমকে সফল করে ২০১৮ সালের সাব ইন্সপেক্টরের পরীক্ষায় জম্মু কাশ্মীর পুলিশের বিভিন্ন বিভাগে চাকরি পেল তাঁরই ৩৮ জন ছাত্র৷ এগজিকিউটিভ, আর্মড ও টেলিকম বিভাগের সাব ইন্সপেক্টর পদের জন্য লিখিত পরীক্ষায় এই সাফল্য এসেছে সন্দীপ চৌধুরীর ছাত্রদের৷
বুধবারই লিখিত পরীক্ষার সফল পরীক্ষার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশিত হয়েছে৷ এরপর তাদের দিতে হবে পার্সোনালিটি অ্যাসেসমেন্ট টেস্ট৷ এক টেলিফোনিক সাক্ষাতকারে সন্দীপ জানান, তার পড়ুয়াদের মধ্যে ২৫ শতাংশের ওপরে ছাত্র ছাত্রী সফল হয়েছে৷ এই খবর তাঁর কাছে স্বপ্নের মত৷

সন্দীপ নিজে ২০১২ সালের জম্মু কাশ্মীর ক্যাডারের আইপিএস৷ দক্ষিণ কাশ্মীরের সোপিয়ান জেলায় এসএসপি হিসেবে কর্মরত তিনি৷ সন্দীপ জানিয়েছেন এই পড়ুয়াদের ২৫ দিন ধরে প্রতিদিন সকালে দু ঘন্টা করে পড়াতেন৷ পড়ুয়ারা জম্মু কাশ্মীরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তাঁর কাছে পড়তে আসত৷ পড়ুয়াদের মধ্যে ৭ জন ছাত্রীও ছিল৷

- Advertisement -

পড়ুয়াদের মধ্যে একজন, জম্মু কাশ্মীর পুলিশের কনস্টেবল শুভম মনসোত্রা ভাল ফল করেছেন৷ ছাত্র ছাত্রীদের এই সাফল্যে স্বভাবতই খুশি সন্দীপ৷ চাইছেন সোপিয়ানেও একটি ব্যাচ চালু করতে৷ তিনি বলেন জম্মু কাশ্মীরের যুবকরা এগিয়ে আসুক, প্রশাসনিক পদে নিযুক্ত হোক, এটাই চেয়েছিলেন তিনি৷ তাঁর স্বপ্ন বাস্তবায়িত হচ্ছে৷ দু:স্থ ছাত্র ছাত্রীদের পাশে তিনি সব সময়ে রয়েছেন বলে আশ্বাস দেন এই শিক্ষক৷

Advertisement ---
---
-----