বিশ্ববিদ্যালয়ের মানের অবনতিতেও খুশি যাদবপুরের উপাচার্য সুরঞ্জন

কলকাতা: মানের অবক্ষয় হয়েছে। সেই কারণে ষষ্ঠ থেকে পঞ্চম স্থানে নেমে গেল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। যদিও প্রথম দশে থাকতে পেরেই খুশি উপাচার্য সুরঞ্জন দাস।

সোমবার ন্যাশনাল ইন্সটিটিউশনাল র‍্যাংকিং ফ্রেমওয়ার্কের তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ ও উন্নয়ন মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর প্রকাশ করেছেন ২০১৮ সালের সেই তালিকা।

গত বছরের মতো এই বছরেও দেশের সেরা দশ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের তালিকায় রয়েছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। কিন্তু, উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে এই বছরে নেমে দেশের শ্রেষ্ঠ বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় অবনমন ঘটেছে যাদবপুরের। ২০১৭ সালে পঞ্চম স্থানে থাকলেও একবছর পরে সেই স্থান আর নেই। একধাপ নেমে গিয়েছে।

- Advertisement -

যদিও মানের অবক্ষয় ঘটলেও তা নিয়ে চিন্তিত নন উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। উলটে তিনি প্রথম দশে থাকতে পেরেই বেশ গর্ব অনুভব করছেন। তিনি বলেন, “আজকে মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী আমাদের পুরষ্কার দিয়েছেন। আমরা পুরষ্কার পেয়েছি। সারা ভারতে আমরা দশের মধ্যে ৬ নম্বর স্থান অর্জন করেছি।”

অন্যদিকে, উন্নতি করেছে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। ২০১৭ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থান ছিল ১৬ নম্বরে। সেই জায়গা থেকে উঠেছে এসেছে। তবে প্রথম দশে জায়গা পায়নি। আগের বছরের থেকে দুই ধাপ এগিয়ে এসে ১৪ নম্বর স্থান পেয়েছে।

দেশের সেরা দশ কলেজের মধ্যে রয়েছে রাজ্যের রামকৃষ্ণ মিশন বিদ্যামন্দির। হাওড়া জেলায় অবস্থিত এই একটি কলেজই স্থান পেয়েছে সেরা দশের মধ্যে। আগের বছর সেরা দশ কলেজের তালিকায় ছিল কলকাতার সেন্ট জেভিয়ার্স। এবার সেই তালিকায় নেই সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম এবং রামকৃষ্ণ মিশন বিদ্যামন্দির কলেজের দশে থাকা পশ্চিমবঙ্গের জন্য খুব ভালো খবর বলে জানিয়েছেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। তবে, সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ এবং যাদবপুরের মানের অবনতির বিষয়ে কিছু বলেননি সুরঞ্জনবাবু।

Advertisement
---