ব্রিগেডের আগে জলঙ্গীর সিপিএম বিধায়কের তৃণমূল যোগদান

স্টাফ রিপোর্টার, বহরমপুর: ব্রিগেডের আগে মুর্শিদাবাদে বিরোধী দলে ভাঙন ঘটাল তৃণমূল কংগ্রেস৷ বৃহস্পতিবার মুর্শিদাবাদের জলঙ্গী মহাবিদ্যালয় মাঠে ব্রিগেড সভা প্রস্তুতি উপলক্ষে একটি জনসভার আয়োজন করা হয়৷ এদিনের এই সভাতে সিপিএমের বিধায়ক আব্দুর রেজ্জাক মণ্ডল তৃণমূল কংগ্রেস যোগদান করলেন৷ রাজ্যের পরিবহণ ও পরিবেশ মন্ত্রী তথা মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূলের পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে তৃণমূলে এলেন তিনি।

এদিন শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘‘আব্দুর রেজ্জাক সাহেবকে আমরা গ্রহণ করলাম। ব্রিগেড সভার আগে তাঁকে তৃণমূলে যোগদান করালাম। আমি যা বলি তা করে দেখাই৷ সেটা আজকে প্রমাণ দিলাম৷ আব্দুর রেজ্জাক সাহেবের তৃণমূলে যোগদানে জলঙ্গী বিধানসভাতে দলের আরও শক্তি বৃদ্ধি পেল। আগামী লোকসভা নির্বাচনে মুর্শিদাবাদ কেন্দ্রে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে।’’

তিনি বিরোধীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘‘মুর্শিদাবাদ জেলাতে বিরোধীদের কোনও কাজ নেই। মুর্শিদাবাদের সিপিএম সাংসদ বদরুদ্দজা পাঁচ বছরে কি কাজ করেছেন আমার জানা আছে। পাশাপাশি অধীর চৌধুরী কুড়ি বছরের সাংসদ৷ তিনি সাংসদ তহবিলে টাকায় কী কাজ করেছেন জবাব দিচ্ছেন না। অধীর চৌধুরীর কাজ হল তৃণমূলে বিরোধিতা করা৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনপ্রিয়তাকে ছোট করা ও তৃণমূল কংগ্রেসকে টেনে নিচে নামানো৷ এটাই এখন বিরোধীদের কাজ। অধীর চৌধুরী সিপিএম বিজেপির এক সঙ্গে চলছে। মুর্শিদাবাদ এখন হ-য-ব-র-ল জোট চলছে৷’’

অন্যদিকে বিধায়ক আব্দুর রেজ্জাক মণ্ডল দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে বলেন, ‘‘আট বছরের বিধায়ক হয়েও মানুষের জন্য কিছু করতে পারিনি৷ তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে সামিল হলাম। আমি জলঙ্গী মানুষের জন্য কাজ করব৷ তাই আমার এই সিদ্ধান্ত৷’’