মহানগরে দু’দিন ধরে পালিত হচ্ছে জন্মাষ্টমী

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রবিবার থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছে কৃষ্ণের জন্ম উৎসব পালন। বেরিয়েছে শোভাযাত্রাও। কিন্তু সোমবার সকালেও কৃষ্ণের জন্মোৎসব উপলক্ষে শোভাযাত্রা বেরোয়।

রবিবার মহানগরের বিভিন্ন জায়গাতে শোভাযাত্রার আয়োজন করেছিল বিশ্বহিন্দু পরিষদ। সোমবার মহানগরে জন্মাষ্টমীর শোভাযাত্রা বের করে বাগবাজার গৌড়ীয় মঠ। পঞ্জিকা মতে যে দিন জন্মাষ্টমী তিথি তার একদিন পরে গৌড়ীয় মঠে কৃষ্ণের জন্মের উৎসব পালন করা হয়৷ অর্থাৎ রবিবার জন্মাষ্টমী পালন হলেও গৌড়ীয় মঠে সেটি পালিত হবে রবি এবং সোমবার দুদিন ধরে। শোভাযাত্রাও বের হয় সোমবার। মঠের তরফে জানানো হয়েছে, বাগবাজার গৌড়ীয় মঠ থেকে জন্মাষ্টমীর শোভাযাত্রা শ্যামবাজার পাঁচমাথার মোড় এবং বিধান সরণী হয়ে কলেজস্ট্রিট পৌঁছয়। সেখান থেকে কলাকার স্ট্রিট, আহিরীটোলা, বিকে পাল হয়ে ফিরে আসে বাগবাজার মঠে।

কেন এই দু’দিনের জন্মাষ্টমী? উত্তরের খোঁজে গৌড়ীয় মঠের ভক্তিনিষ্ঠ মধুসূদন মহারাজকে যোগাযোগ করা হলে তিনি কলকাতা ২৪x৭-কে বলেন, “গৌড়ীয় বৈষ্ণবরা শুদ্ধা এবং বিদ্ধা বিচার মেনে চলেন। অরুণোদয়কালকে আমরা দিনের সূচনাকাল ধরি। এই সময়কে ধরে উৎসব পালন করা হয়। অরুণোদয়কাল অর্থাৎ সূর্য উদয়ের ১ঘন্টা ৩৬ মিনিট পূর্ব সময়। অষ্টমী তিথি মেনে সাধারণত লোকেরা কৃষ্ণের জন্ম উৎসব পালন করেন। কিন্তু অষ্টমীর মধ্যে (অরুণোদয় কাল অনুসারে) সপ্তমী তিথি পড়ে গেলে সেটিকে গৌড়ীয়রা শুদ্ধ মনে করেন না।

- Advertisement -

অর্থাৎ ধরুন রবিবার অরুণোদয়কালে (সূর্যোদয়ের ১ঘন্টা ৩৬মিনিট আগে) সপ্তমী তিথি ছিল তাই সেই পুরো দিনটির মধ্যে অষ্টমী পড়লেও আমরা গৌড়ীয় বৈষ্ণবরা এই দিনটিকে শুদ্ধ মনে করিনা। তাই আমরা সোমবার পরের দিন কৃষ্ণের জন্ম উৎসব পালন করি।”

Advertisement ---
---
-----