ভয়ঙ্কর ঘুর্নিঝড়ের পর প্রবল ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল গোটা দেশ

ফাইল ছবি

টোকিও: জেবি টাইফুনের পর রিখটার স্কেলে ৬.৭ মাত্রায় কেঁপে উঠল জাপান৷ ভূমিকম্পের তীব্রতা সবচেয়ে বেশি অনুভূত হয় সাপোরো শহরে৷ হোক্কাইডোর দ্বীপ শহর সাপোরো থেকে ৭০ কিমি দূরে ভূমিকম্পের উৎসস্থল৷ এখনও হতাহতের খবর নেই৷ এখনও পর্যন্ত সুনামির সতর্কবার্তা জারি হয়নি বলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আবহাওয়া দফতর থেকে জানানো হয়েছে৷

ভূমিকম্পের জেরে হোক্কাইডো জুড়ে ব্ল্যাকআউট৷ কম্পনের ফলে অসুমায় ভূমিধসের খবর এসেছে৷ আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানান হয়েছে, ভূমিধস ও বাড়ি ভেঙে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷ ইতিমধ্যেই জাপানে জেবি টাইফুনে কমপক্ষে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ অসংখ্য মানুষ আহত হয়েছেন৷ একইদিনে টাইফুন, ভূমিকম্পের জেরে বৃহৎ প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের মুখে জাপান৷ কারণ, টাইফুনের ফলে জাপানের বেশ কিছু এলাকা প্লাবিত হয়েছে৷ ঘরছাড়া বহু মানুষ৷ বাতিল হয়েছে ৬০০ উড়ান৷

জেবিকে শক্তিশালী টাইফুনের তকমা দিয়েছে জাপানের হাওয়া অফিস৷ ২৫ বছর পর জাপানের বুকে আছড়ে পড়া টাইফুনের মধ্যে জেবিকে সবচেয়ে শক্তিশালী টাইফুন বলা হচ্ছে৷ তাই প্রশাসনের তরফে সবধরনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল৷ মঙ্গলবার সি অফ জাপান থেকে জেবি প্রবেশ করে দেশের ভূখণ্ডে৷ বুধবার সেটি সাইক্লোনে পরিণত হবে৷ এরপর শুরু হবে জেবির তাণ্ডব৷

- Advertisement -

অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে হাইস্পিড ট্রেন ও সাব আরবান ট্রেন৷ ওসাকা-হিরোশিমা রুটের রেল পরিষেবা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ বন্ধ রাখা হয়েছে ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং স্কুল ও কলেজ৷ বেশ কয়েকটি সংস্থা জুলাই মাসে একাধিক টাইফুন ও প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের জাপানে জেরে ২০০ মানুষের প্রাণহানি হয়৷ এবার ভূমিকম্পে কতটা ক্ষতিগ্রস্ত জাপান, তার সঠিক খবর পাওয়া যাচ্ছে না৷

Advertisement
---