চিনকে দমাতে চার রাষ্ট্রের কূটনৈতিক শক্তি জোট চাইছে জাপান

টোকিও: চিনের বাড়বাড়ন্ত থামাতে আমেরিকা, ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে বিশেষ কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করতে চায় জাপান৷ একটি সংবাদ মাধ্যমে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় এমনই জানিয়েছেন জাপানের বিদেশ মন্ত্রী তারো কোনো৷ সময় নষ্ট না করে সেই লক্ষ্যে কাজ যে শুরু করে দিয়েছে জাপান তা বোঝা যায় দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রী পদে ফিরে এসেই সিন জো আবের প্রথম বিদেশ সফরের দিকে লক্ষ্য রাখলে৷ ৬ নভেম্বর আমেরিকায় গিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করতে চলেছেন তিনি৷

সাক্ষাৎকারে জাপানের বিদেশ মন্ত্রী জানিয়েছেন, চারটি দেশের মধ্যে ফ্রি ট্রেড ও প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে সহযোগিতা গড়ে তোলাই হবে বৈঠকের মূল লক্ষ্য৷ চিনকে রুখে দক্ষিণ-পূর্ব, দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়ায় ব্যবসা বাড়ানোই হবে চার দেশের অন্যতম কাজ৷ এছাড়া এশিয়া ও আফ্রিকার মধ্যে বেশিমাত্রায় বিনিয়োগ করার বিষয়টিও উঠে আসবে আলোচনায়৷ চিনা গণমুক্তি বাহিনী দক্ষিণ চিন সাগরে সাবমেরিনের একটি বহর মোতায়েন করেছে। এই সমস্ত সাবমেরিনকে চিনের গণমুক্তি ফৌজের দক্ষিণ চিন সাগরের নৌবহরের আওতায় মোতায়েন করা হয়েছে।

দক্ষিণ চিন সাগরের বিতর্কিত অঞ্চলে যুদ্ধ প্রস্তুতি বাড়ানোর লক্ষ্যে এই বহরকে সেখানে মোতায়েন করা হয়েছে বলে খবর দিয়েছে চিনা দৈনিক সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট। এই বহরের আওতায় তাইওয়ান প্রণালি থেকে শুরু করে জেমস শোয়াল পর্যন্ত অঞ্চল থাকবে। এই অঞ্চলেই বিতর্কিত পার্সেল দ্বীপপুঞ্জ, ম্যাকক্লিসফিল্ড ব্যাংক এবং স্পার্টলি দ্বীপপুঞ্জ অবস্থিত। এরপরেই নড়েচড়ে বসেছে জাপান৷ চিনকে তামাতে তৎপর হয়েছে তারা

Advertisement
----
-----