জেরুজালেম ইস্যু: ইজরায়েলি সেনার গুলিতে নিহত ফিলিস্তিনি, জখম বহু

গাজা সিটি: আশঙ্কা সত্যি হতে শুরু করেছে৷ জেরুজালেমকে ইজরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ রক্তাক্ত হল৷ সংবাদ সংস্থা এএফপি জানাচ্ছে, ইজরায়েলি রক্ষীদের গুলিতে দুই ফিলিস্তিনির মৃত্যু হয়েছে৷ সেই মৃতদেহ ঘিরে প্রবল বিক্ষোভের প্রস্তুতি চলছে৷

বিবিসি জানাচ্ছে, দু পক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ২০০ জন জখম হয়েছেন৷ সংঘর্ষ চলছে গাজা ভূখণ্ড সংলগ্ন চেক পোস্ট এলাকা ও ওয়েস্ট ব্যাংকের সীমানায়৷ আল জাজিরা জানাচ্ছে, ওয়েস্ট ব্যাংকের পরিস্থিতি খুবই উদ্বেগ জনক৷ এখানে ইজরায়েলি সেনা ও পুলিশের সঙ্গে সরাসরি হাতাহাতি চলছে বিক্ষোভকারী ফিলিস্তিনীয়দের৷ জেরুজালেমের রাস্তায় রাস্তায় চলছে বিক্ষোভ৷ পরিস্থিতি যে দিকে গড়াচ্ছে তাতে আরও বড় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হবে বলেই জানাচ্ছে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম৷

পড়ুন: জেরুজালেম ইস্যু: ইজরায়েলি-ফিলিস্তিনি সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ছে দ্রুত

- Advertisement -

জেরুজালেম শহরকে ইজরায়েল ও ফিলিস্তিনীয় কর্তৃপক্ষ তাদের রাজধানী হিসেবে দাবি করে৷ যদিও ইজরায়েলের প্রশাসনিক কাজ পরিচালিত হয় তেল আভিভ থেকে৷ অন্যদিকে ফিলিস্তিনীয় কর্তৃপক্ষের প্রশাসনিক কেন্দ্র রামাল্লা৷ আর ভূমধ্যসাগর তীরবর্তী ফিলিস্তিনি অধ্যুষিত গাজা ভূখণ্ড শাসন করছে সশস্ত্র সংগঠন হামাস৷

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা করেছেন জেরুজালেম শহরে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তর করা হবে৷ পাশাপাশি ইজরায়েলের রাজধানী হিসেবে এই শহরকে স্বীকৃতি দিয়েছেন৷ এর জেরেই ক্ষুব্ধ হয়ে উঠছে সমগ্র মুসলিম বিশ্ব৷ আরব দুনিয়া ও পশ্চিম এশিয়ার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মহলেও তীব্র সমালোচিত হচ্ছে ট্রাম্পের জেরুজালেম নীতি৷ সশস্ত্র সংগঠন হামাস যুদ্ধের হুঁশিয়ারি দিয়ে তীব্র গণ অভ্যুত্থানের ডাক দিয়েছে৷
আরব ঝড়ের কেন্দ্র জেরুজালেম

বিশ্বের প্রাচীনতম শহরগুলির অন্যতম জেরুজালেম। এখানেই ইহুদি ধর্ম ও ইসলামের পবিত্র স্থান টেম্পল মাউন্ট ও আল-আকসা মসজিদ অবস্থিত৷ শহরটি তাই ইহুদি , মুসলিম ও খ্রিষ্টানদের কাছে বিশেষ পবিত্র স্থান। জেরুজালেমকে ঘিরে ফিলিস্তিনি ও ইজরায়েলিদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছে বহু বছর ধরে৷
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর যখন আরব দুনিয়ার মাঝখানে ইহুদি দেশ হিসেবে ইজরায়েলকে তৈরি করা হল তখন থেকেই এর সংঘাত চরম আকার নিয়ে ফেলে৷ শহরটির বিখ্যাত সৌধ আল আকসা মসজিদ ও টেম্পল মাউন্ট৷ এই ধর্মীয় স্থানটি ঘিরে বারে বারে ফিলিস্তিনি বিদ্রোহী বনাম ইজরায়েল সরকারের পুলিশ সংঘর্ষে রক্তাক্ত হয়৷

পড়ুন: জেরুজালেম ইস্যু: গাজা ঘিরে অশান্তির মেঘ, রক্তাক্ত পরিস্থিতির আশঙ্কা

ইজরায়েল সরকার ফিলিস্তিনিদের অস্তিত্ব স্বীকার করে না৷ একইরকম অবস্থান তাদের বন্ধু রাষ্ট্র মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের৷ অন্যদিকে ভারত সহ রাষ্ট্রসংঘের বেশিরভাগ দেশ প্যালেস্টাইনকে স্বীকার করে নিয়েছে৷

১৯৬৭ সাল থেকে ইজরায়েল পূর্ব জেরুজালেমে ইহুদি বসতি গড়তে শুরু করে। ১৯৮০ সালে জেরুজালেমকে রাজধানী ঘোষণা করে ইজরায়েল। তবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় তখন তাদের সমর্থন করেনি৷

আশির দশকে গাজা ও ওয়েস্ট ব্যাংকে প্রথম ইন্তিফাদা (গণ অভ্যুত্থান) হয়৷ রক্তাক্ত সেই পরিস্থিতি পার করে ১৯৯৩ সালে ফিলিস্তিনীয় কর্তৃপক্ষ ও ইজরায়েলের মধ্যে শান্তি চুক্তি হয়৷ সেই শান্তি চুক্তি অনুসারে, ফিলিস্তিনীয় কর্তৃপক্ষ তাদের রাজধানী হিসেবে পূর্ব জেরুজালেমকে দাবি করে৷ হাজার বছরের ইতিহাসে, শহরটি কমপক্ষে দু’বার ধ্বংস হয়েছে,৷ অন্তত ৪৪বার দখল এবং পুনর্দখল হয়েছে। জেরুজালেমকে ঘিরে মুসলিম প্রধান আরব দুনিয়ার আবেগ আবর্তিত হচ্ছে৷

Advertisement
----
-----