ক্যারির যৌন রোগের কারণেই আত্মহত্যা, প্রকাশ্যে ক্যাথরিওনার চিঠি

নিউ ইয়র্ক:  “সম্পর্ক ভেঙে গেলে এগোনো যায়। একজনকে ভুলে নতুন করে আরেকজনের সঙ্গে শুরু করা যায় জীবন। কিন্তু, আমার সে সবের উপায় রইল না! যৌন রোগ নিয়ে আমি কী করে নতুন সম্পর্কে যাব? বরাবরের মতো আমি এক ভাঙাচোরা জিনিসে পরিণত হলাম”। মৃত্যুর একবছর পর সামনে এলও ক্যাথরিওনা হোয়াইটের সুইসাইড নোট। যেখানে পরিষ্কার করে দিয়েছে ক্যাথরিওনা তাঁর মৃত্যুর রহস্য। স্বামী জিম ক্যারির আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে বাধ্য হন তিনি।

ক্যারি ও ক্যাথরিওনার বিচ্ছেদ্যের সময়ই প্রকাশ্যে আসে এই সত্যটি। যদিও ক্যারি এখনও অস্বীকার করে চলেছেন সেকথা। যৌন রোগে আক্রান্ত ছিলেন ক্যারি। কিন্তু সেকথা কোনও দিন জানানি ক্যাথকে। কিন্তু, যখনই যৌন রোগে আক্রান্ত হন ক্যাথরিওনা, সত্যটা সামনে আসে! কথাটা জানাজানি হওয়ার পরে যদিও নায়ক অস্বীকার করেছিলেন ব্যাপারটা! বলেছিলেন, তিনি নন, অন্য কারও কাছ থেকে যৌন রোগে আক্রান্ত হয়েছেন ক্যাথরিনা! এবং, ঘটনাটার জন্য তাঁকে দায়ী করায় বেশ কিছু খারাপ গালাগালিও দিয়েছিলেন।

তবে এখানেই শেষ নয়! ক্যাটরিওনার চিঠির সূত্রে বার্টন (ক্যাথের প্রথম স্বামী)  ফের আঙুল তুলেছেন ক্যারির দিকে। এও অভিযোগ এনেছেন, অবসাদগ্রস্ত ক্যাথরিওনাকে পেন কিলার আর ঘুমের ওষুধ এনে দেওয়ার মতো কাজ ক্যারি করেছেন সজ্ঞানেই। কিন্তু এখনও ক্যারির কথায়, “চেহারার কিছু ফুসকুড়ি আমার যৌন রোগ। বোকা বোকা কথা। দাড়ি কামালে বা উদ্দাম যৌনতায় থাকলেও এরকম ফুসকুড়ি বেরোয়! অন্যের কথার ভিত্তিতে আমায় এরকম দোষারোপ করা যায় না”। তবে এখন প্রসঙ্গ উঠছে ক্যারির মেডিক্যাল টেস্ট। তবে ক্যাথরিওনার কথা যদি সত্য হয়, তাহলে শেষ হতে চলেছে ক্যারির কেরিয়ার।

Advertisement
---
-----