মুম্বইয়ের জিন্না হাউস যেন অক্ষত থাকে: ইমরান খান

ইসলামাবাদ: বিলাসবহুল জিন্না হাউস ভেঙে ফেলার বিরোধিতা আগেই করেছিল পাকিস্তান৷ আর এবার মুখ খুললেন পাকিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ বিরোধী দলের নেতা তেহরিক-ই-ইনসাফ প্রধান ইমরান খান৷ তিনি ট্যুইট করে জানান , জিন্না হাউসে যেন হাত না লাগানো হয়৷ একে ভেঙে ফেলে ইতিহাসকে মুছে ফেলা যাবে না৷

উল্লেখ্য, গত মাসে বিজেপি বিধায়ক এবং রিয়েল এস্টেট ডেভেলপর মঙ্গল প্রভাত লোধা বলেছিলেন, দক্ষিণ মুম্বইস্থিত এই জিন্না হাউসকে ভেঙে ফেলা উচিৎ, কারণ এখানেই দেশভাগের বীজ বপন করা হয়েছিল৷ এই স্থানে একটি সাংস্কৃতিক কেন্দ্র গড়ে তোলা দরকার বলে মন্তব্য করেন তিনি৷ ২.৫একর জমির ওপর তৈরি এই জিন্না হাউসের বর্তমান মূল্য প্রায় চল্লিশ কোটি ডলার৷

সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের খবর অনুযায়ী পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র নফিস জাকারিয়া এই বিষয়ে বলেন এই সম্পত্তি পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতার এবং একে সম্মান জানানো উচিৎ৷

- Advertisement -

১৯৮২ সালে এই বিশালাকায় জিন্না হাউস খালি করে দেওয়ার আগে বেশ কয়েক বছর এখানে ব্রিটেনের ডেপুটি হাই কমিশনার এখানে থাকতেন৷ বেশ কয়েকবার এই বাড়িটি বিক্রি করে দেওয়ার কথা বলেছিল পাকিস্তান৷ দিল্লির দূতাবাস থেকে এই জিন্না হাউস লিজে দেওয়া হোক বলেও আবেদন জানানো হয়৷ তাদের দাবি ছিল এখানেই মুম্বইয়ের হাই কমিশনটি প্রতিষ্ঠা করা হবে৷

বিজেপি বিধায়ক এবং রিয়েল এস্টেট ডেভেলপর মঙ্গল প্রভাত লোধা আগেই জানিয়েছেন, পূর্ত দফতর এই বিল্ডিং-এর দেখভালের দায়িত্বে রয়েছে। এর জন্য কয়েক লক্ষ টাকা করে খরচ হচ্ছে। সম্প্রতি এনিমি প্রপার্টি অ্যাক্ট (শত্রু সম্পত্তি) পাস হয়েছে লোকসভায়। সেই পরিপ্রেক্ষিতেই তিনি বলেন, জিন্নার সম্পত্তি ধ্বংস করে দেওয়াই ভারতের একমাত্র উপায়। এই বিল্ডিং ভেঙে সেখানে এমন কিছু তৈরি করা হোক, যাতে মহারাষ্ট্রের সংস্কৃতি তুলে ধরা যায়। যেখানে ভারতের ঐতিহ্যপূর্ণ ইতিহাসের প্রদর্শনী হবে।

Advertisement
-----