চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, ধৃত চার যুবকের জেল হেফাজত

তমলুক: চাকরি দেওয়ার নামে ভিন্ন জেলা থেকে ডেকে আনার পর দুই যুবককে আটকে রেখে বেধড়ক মারধর ও পরে টাকা আদায় করার অভিযোগে চার যুবককে গ্রেফতার করল পুলিশ। সোমবার ঘটনাটি ঘটেছে, পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরি থানা এলাকায়। অভিযুক্ত যুবকদের এদিন কাঁথি মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক ধৃতদের ১৪ দিনের জেল হেপাজতের নির্দেশ দিয়েছেন।

পুলিশ সূত্রের খবর, চাকরির সন্ধানে থাকা যুবকদের ফাঁদে ফেলার লক্ষ্যে খেজুরির কয়েকজন যুবক বেশ কিছুদিন ধরেই প্রতারণার একটি চক্র তৈরি করেছিল। সম্প্রতি বিভিন্ন সূত্রে তাঁরা পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোনা টাউনের বছর ২৮ এর দুই যুবককে ফাঁদে ফেলে খেজুরিতে ডেকে আনে। প্রতাপ সামন্ত ও তাঁর এক বন্ধু চন্দ্রকোনা থেকে গত শনিবার খেজুরির হেঁড়িয়ার কাছে এসে অভিযুক্তদের সঙ্গে দেখা করেন। এরপর অভিযুক্তরা ওই দুই যুবককে মোটরবাইকে চাপিয়ে খেজুরুর কাদিরপুরের একটি দর্জির দোকানে নিয়ে যায়। সেখানে আটকে রেখে তাঁদের ওপর চলে মারধর ও অত্যাচার। ছিনিয়ে নেওয়া হয় মোবাইল ফোন ও টাকা পয়সা। এরপর ওই যুবকদের ভয় দেখিয় বাড়িতে ফোন করে ২৫ হাজার টাকা দিতে বলা হয়। নির্দিষ্ট ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে টাকা পাওয়ার পরেই দুই যুবককে হেঁড়িয়ার কাছে ছেড়ে দেওয়া হয়।

এরপরেই প্রতারিত দুই যুবক স্থানীয় মানুষদের সহযোগিতায় খেজুরি থানায় গোটা ঘটনার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ জমা করেন। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমে খেজুরির কোটারির বাসিন্দা দীপু পাত্র, সেখ রবিউল, সহমত সাহা এবং ঘোলাবাড়ের বাসিন্দা সেক রফিকে গ্রেফতার করে। ধৃতদের সোমবার কাঁথি আদালতে তোলা হলে তাঁদের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, এই চক্র এর আগে আর কাকে প্রতারণা করেছে কিনা সেই দিকটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।