শ্রীনগর: ‘রাইজিং কাশ্মীর’ পত্রিকার সম্পাদক সুজাত বুখারি হত্যায় এবার সরাসরি উঠে এল পাকিস্তান যোগ৷ বুখারি হত্যায় চার জনের মধ্যে একজন লক আপে৷ এবার বাকি তিন হত্যাকারীকেও চিহ্নিত করা গিয়েছে৷ তাদের মধ্যে একজন আবার পাকিস্তানি৷ বাকি দু’জন কাশ্মীরি৷ বুধবার জম্মু কাশ্মীরের পুলিশ সূত্রকে উদ্ধৃত করে এমনটাই দাবি করেছে সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলি৷

বুখারি হত্যার মামলা প্রসঙ্গে এক সিনিয়র পুলিশ অফিসার জানিয়েছেন, তদন্ত প্রায় শেষের মুখে৷ অপরাধীদের  সকলকে চিহ্নিত করা গিয়েছে৷ আততায়ীদের দু’জন কাশ্মীরের বাসিন্দা৷ একজন পাকিস্তানি, নাম নাভিদ জাট৷ এই নাভিদের বিরুদ্ধে আগেও একাধিক অপরাধমূলক কাজে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে৷ তাকে ধরাও হয়৷ কিন্তু পুলিশ হেজাফত থেকে সে পালিয়ে যায়৷

১৪ জুন শ্রীনগরের প্রেস কলোনিতে গাড়ির মধ্যে গুলি করে খুন করা হয় ৪৮ বয়সী সুজাত বুখারিকে৷ গুলিতে ঝাঁঝরা করে দেওয়া হয় তাঁর শরীর৷ বুখারির দুই নিরাপত্তা কর্মীকেও গুলি করে হত্যা করা হয়৷ সাংবাদিক হত্যায় নিন্দার ঝড় ওঠে দেশ জুড়ে৷ তড়িঘড়ি এই হত্যার তদন্তে ডিআইজি শ্রীনগরের নেতৃত্বে সিট গঠন করা হয়৷ তদন্তে নেমে পুলিশ ওই এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে৷ বুখারি হত্যার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ফুটেজ দেখে হত্যাকারীদের ছবি সামনে আনে৷ ছবি প্রকাশের কয়েকঘণ্টার মধ্যে চতুর্থ খুনীকে গ্রেফতার করে তদন্তকারীরা৷ ফুটেজে এই আততায়ীকে বুখারির মৃত্যু নিশ্চিত করতে দেখা গিয়েছে৷

এ দিকে বুখারির মৃত্যুর পর আরও দুই কাশ্মীরের সাংবাদিককে খুনের হুমকি দেওয়া হয়েছে৷ কাশ্মীর ফাইটিং নামে একটি অনামী ব্লগে ইফতিকার গিলানি ও আহমেদ আলি নামে দুই সাংবাদিককে খুনের হুমকি দেওয়া হয়৷ বুখারির মৃত্যুর ১১ দিন আগে এই ব্লগেই তাঁকে খুনের হুমকি দেওয়া হয়েছিল৷

----
--