স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রাজনৈতিক স্বার্থে দ্বিচারিতা করছে রাজ্যের শাসকদল। একই কারণে বার বার হিংসার আশ্রয় নিচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস। শাসক শিবিরের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ করলেন বঙ্গ বিজেপি-র রাজ্য স্তরের নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর অভিযোগ, “ব্রাহ্মণ ভোজন করিয়ে দলিত খুন করছে তৃণমূল।”

আরও পড়ুন- তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দলে রণক্ষেত্র সিতাই, গুলিবিদ্ধ পুলিশ

Advertisement

বুধবার ভারতীয় জনতা পার্টির তপশিলী মোর্চার উত্তর কলকাতা সাংগঠনিক জেলার কর্মী সম্মেলন ছিল। সেই সম্মেলনের সভায় হাজির ছিলেন অভিনেতা থেকে রাজনৈতিক নেতা হওয়া জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সম্মেলনের মঞ্চ থেকেই রাজ্য সরকারকে আক্রমণ করেন জয়।

আরও পড়ুন- মোদী দেখবেন রাস্তার ধারে দিদি দাঁড়িয়ে রয়েছেন …

পদ্ম শিবিরের তপশিলী মোর্চার এই সম্মেলন থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পদত্যাগ দাবি করা হয়। বৃষ্টির মাঝেই মাটিতে ভারতীয় কায়দায় বসে বক্তব্য রাখেন নেতৃত্বরা। বক্তব্যের শুরুতেই জয় বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতে বিভিন্ন ধরনের মানুষের বৈচিত্র্যের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, “বিভিন্ন ধরনের মানুষের সংমিশ্রণ হচ্ছে আমাদের ভারত।”

এরপরেই সরাসরি রাজ্যের শাসকদলকে আক্রমণ শুরু করেন জয়। তিনি বলেন যে প্রথমে তৃণমূল প্রথমে সংখ্যালঘু তোষণ শুরু করেছিল। যার কারণে জয় শ্রীরাম বলা সংখ্যাগুরু হিন্দুরা তৃণমূলের পাস থেকে সরে যাচ্ছে। হিন্দু ভোট ব্যাংকের দখল নিতে তৃণমূল কংগ্রেস এখন মরিয়া হয়ে উঠেছে বলে দাবি করেছেন জয়।

আরও পড়ুন- এবার বিজেপিকে ভাঙার হুঁশিয়ারি দিলেন শুভেন্দু

কোন উপায়ে হিন্দু ভোট ব্যাংক দখল নেওয়ার প্রয়াস তৃণমূল করছে তাও বুঝিয়ে দিয়েছেন জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই উপায় যে কতটা অনৈতিক তাও ব্যাখ্যা করেছেন তিনি। তাঁর কথায়, “তৃণমূল কংগ্রেস নেতা অনুব্রত মণ্ডল বীরভূমে ব্রাহ্মণ ভোজন করাচ্ছে। আবার দলিতদের খুন করাচ্ছে। কাউকে খাইয়ে, কাউকে ভয় দেখিয়ে হাতে রাখতে চাইছে।” রাজ্য প্রশাসনের উদ্দেশ্যে তিনি আরও বলেছেন, “তপশিলী বা দলিত সম্প্রদায়ের মানুষদের নিয়ে খেলবেন না। এরা খুব শান্ত মানুষ। কিন্তু একবার যদি খেপে যায় তাহলে লঙ্কা কাণ্ড বাধিয়ে দিতে পারে।”

----
--