‘জনগণের টাকায়’ ইফতার পার্টির আয়োজন রাজ্য সরকারের

ফাইল ছবি

হায়দরাবাদ: রমজান উপলক্ষ্যে ইফতার পার্টির আয়োজন করতে চলেছে তেলেঙ্গানা সরকার৷ আগামী ৮ জুন ফতেহ ময়দানে হবে এই অনুষ্ঠান৷ প্রায় সাত হাজার অতিথিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে৷ আমন্ত্রিতের তালিকায় রয়েছেন এক হাজার ভিআইপি৷ তাদের জন্য থাকছে বিশেষ ব্যবস্থা৷ তবে এই ‘গণভোজ’ নিয়ে আপত্তি তুলেছে রাজ্যের একাধিক সংগঠন৷ সরকারের উদ্দেশে তাদের প্রশ্ন, জনগণের টাকায় এভাবে মোচ্ছব করার এক্তিয়ার কি রাজ্য সরকারের আছে?

আরও পড়ুন: এক মাসের জামিন পেয়ে ইডি দফতরে পৌঁছলেন চিদাম্বরম

এখানেই শেষ নয়৷ কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবার মসজিদে মসজিদে ইফতার পার্টির আয়োজন করা হবে৷ এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, রাজ্যের ৮০০টি মসজিদে হবে ইফতার পার্টি৷ এই ৮০০টির মধ্যে চারশোটি গ্রেটার হায়দরাবাদ পুরসভা এলাকার৷ বাকি মসজিদগুলি রাজ্যের বিভিন্ন জেলার অন্তর্গত৷ ওই দিন দুঃস্থদের পেট ভরে খাওয়ানোর ব্যবস্থা করবে মসজিদগুলি৷

- Advertisement -

এই দাওয়াত-এ-ইফতার নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে একাধিক সংগধন৷ তাদের অভিযোগ, জনগণের টাকার অপব্যবহার করছে রাজ্য সরকার৷ সাংবাদিক সম্মেলন করে তারা জানিয়েছেন, ইফতার মুসলিম সম্প্রদায়ের একটি বিশেষ অনুষ্ঠান৷ কিন্তু সরকার এই নিয়ে রাজনীতি শুরু করেছে৷ সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত এক কর্মী বলেন, ‘‘সরকার যদি সত্যিই সংখ্যালঘুদের মঙ্গল চায় তাহলে দারিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারীদের রেশন কার্ডের মাধ্যমে ফল ইত্যাদি খাদ্যসামগ্রী দেওয়ার ব্যবস্থা করুক৷ এই ভাবে সংখ্যালঘুদের উন্নয়নের নামে জনগণের টাকা নয়ছয় করা লজ্জাজনক ঘটনা৷’’

আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রীর ডাকা ইফতার পার্টি এড়িয়ে গেলেন আমলারা

তবে এই সবকে অভিযোগকে বিশেষ আমল দিতে নারাজ রাজ্য সরকার৷ তেলেঙ্গানার উপমুখ্যমন্ত্রী মেহমুদ আলি জানিয়েছেন, রাজ্যের ১২ লক্ষ মানুষকে বস্ত্রদান করা হবে৷ গোটা কর্মকাণ্ডের জন্য ১৫ কোটি টাকা খরচ হবে৷

Advertisement
---