ঝগড়া করার জন্য বাবুল ও দিলীপকে বকবেন কৈলাস

প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রাজ্য বিজেপির সাংগঠনিক পরিবর্তন আসন্ন৷ রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব সাংগঠনিক রদবদলের নির্দেশ দিয়েছেন৷ সেই মতো বুধবার রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব একটি গোপন বৈঠক করেন৷ বৃহস্পতিবারই রাজ্যে পা রাখবেন দুই পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় এবং শিবপ্রকাশ৷

বিজেপি সূত্রে খবর, জেলার বিভিন্ন নেতাদের ওপর বিতশ্রদ্ধ রাজ্য সভাপতি কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে যে রিপোর্ট দিয়েছেন তার ভিত্তিতেই বিভিন্ন জেলার, বিভিন্ন মণ্ডলের মাথারা পরিবর্তিত হতে পারেন৷ যে সব জেলা সভাপতি দলীয় স্তরে দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে কথা বলেছেন তাঁদের সরে যাওয়ার আশঙ্কায় বেশি৷

আরও পড়ুন: ‘RSS-BJP নেতৃত্ব মানিক সরকারকে অনুকরণ করুন’

- Advertisement -

বৃহস্পতিবার কলকাতার একটি হোটেলে দুই পর্যবেক্ষকের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন রাজ্য নেতৃত্ব৷ রাজ্যে বিজেপির যারা অফিস বিয়ারার রয়েছেন তাঁদের মধ্যেও দু’এক জনের পরিবর্তন হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে৷ তবে, রাজ্য সভাপতি পদে আগামী ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত দিলীপ ঘোষের টিকে যাওয়া নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই৷ কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব পরবর্তী পর্যায়ে তাঁকে চান কি না সে ব্যাপারে কোনও স্পষ্ট ইঙ্গিত এখনও পর্যন্ত দেয়নি৷ বিজেপির এক রাজ্য নেতার বক্তব্য, ‘‘বেশ কিছু নেতা দলের বদনাম করছেন৷ অনেকে রাজ্য সভাপতির সমালোচনা করছেন৷ এতে দলেরই মুখ পুড়ছে৷ কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব এই সব বিষয়গুলো পর্যবেক্ষণ করেছেন৷ এখন দেখা যাক কী হয়৷’’

আরও পড়ুন: ৩৭ বছর আগে এই দিনেই তৈরি হয়েছিল BJP

প্রসঙ্গত উল্লেখযোগ্য, রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের একাংশও নিজেদের মধ্যে সদ্ভাব রাখেন না৷ সেই বিষয়টা প্রকাশ্যে এসেছে অনেকবার৷ পশ্চিম মেদিনীপুরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সভা শুরু হওয়ার আগে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় এবং রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের তর্কাতর্কি সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরায় ধরা পড়েছে৷ এই ঘটনার পর বাবুল এবং দিলীপ দু’জনেই পরস্পর পরস্পরের বিরুদ্ধে বাক্য-বাণ প্রয়োগ করেছেন৷ এই বিষয়টিও নজর এড়ায়নি কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের৷ যা খবর, কৈলাস বিজয়বর্গীয় বিষয়টি নিয়ে বাবুল এবং দিলীপ দু’জনকেই কড়া কথা শোনাবেন৷

Advertisement
---