১৯ বছর পার। ১৯৯৯-এর এরকম দিনেই শুরু হয়েছিল যুদ্ধ। মুখোমুখি হয়েছিল ভারত-পাকিস্তান। আজও সেই সীমান্তে মুখোমুখি দাঁড়িয়ে আছে দুই দেশের সেনাবাহিনী। তবে সেদিনের যুদ্ধে ভারতের জয় লেখা আছে ইতিহাসে। কার্গিল যুদ্ধের ইতিহাস ঘাঁটলে জানা যাবে কি হয়েছিল এই দিনে।

১৯ বছর আগের ইতিহাস ঘেঁটে সেই তথ্যই এক এক করে প্রকাশ করছে ভারতীয় সেনা।

তখন ভারতীয় সেনা জানতে পেরেছে যে কাশ্মীরের সীমান্ত পেরিয়ে কারা যেন ঢুকে পড়েছে দেশের ভূখণ্ডে। সীমান্ত না পেরিয়ে সেই অনুপ্রবেশ বন্ধ করে উদ্যোগী হয় ভারতীয় সেনা। শুরু হয় চিরুণি তল্লাশি। কার্গিল-লে সেক্টর জুড়ে মোতায়েন করা হয় বিশাল বাহিনী। শ্রীনগর-লে হাইওয়ের নিরাপত্তা বজায় রাখতে অভিযান শুরু করে সেনাবাহিনী।

১১ মে বায়ুসেনা অপারেশনে অংশ নিতে চায়। অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। ২৫ থেকেই শুরু হয়ে যায় শত্রু-নিধন অভিযান।

২৯ মে: এই দিনেই কার্গিলের আকাশ থেকে একাধিক অভিযান চালায় ভারত। এছাড়া শত্রুদের সম্পর্কে তথ্য জোগাড় করতে, পায়ে হেঁটেও অভিযানে নামে সেনাবাহিনী।

এদিনই বাটালিক সেক্টরে শত্রুদের মুখোমুখি হয়ে লড়াই করতে গিয়ে শহিদ হন মেজর এম সারাভানন। বাতালিক সেক্টরে পয়েন্ট ৪২৬৮ জয় করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেন তিনি। শত্রুদের দিকে তাক করে গুলি ছুঁড়তে ছুঁড়তে নিজের নিরাপত্তার কথা ভুলে যান তিনি। গুলিতে মৃত্যু হয় তাঁর।

----
--